চার পাশ থেকে ঘিরে ধরেছে ভিলেন-দল, কোথাও পরিত্রাণের উপায় নেই। ঠিক সেই সময়েই তাঁর রিস্টওয়াচ থেকে বেরিয়ে আসে রহস্যরশ্মি। ভিলেন ঘায়েল, তিনিও পগার পার। অথবা নীলবসনা মদালসা সুন্দরী তাঁকে কাবু করে ফেলেছে, মদিরার গেলাসে মিশিয়ে দিয়েছে হলাহল। তার পরে একটা চেরি ঠোঁটে রেখে বেদম লাস্যে স্ক্রিনে ফাটল ধরিয়ে দিচ্ছে। এ মরপৃথিবীতে তিনিই একমাত্র পুরুষ, যিনি সেই বিষ আর লাস্যের ককটেল থেকে কাঁঠালের কোয়ার মতো স্মুথলি বেরিয়ে আসতে পারেন। আমরা জানি, তিনি বন্ড, জেমস বন্ড। পারলে তিনিই পারেন, অন্য কেউ পারেন না। কিন্তু সম্প্রতি এমন ঘোটালায় মজেছেন হার ম্যাজেস্টি’জ সিক্রেট সার্ভিস-এর এই এজেন্ট, যা থেকে পরিত্রাণের আশা নেই বললেই চলে।

বন্ড হিসেবে হলিউড অভিনেতা পিয়ের্স ব্রসনানকে ভোলা বন্ড-প্রেমীদের পক্ষে সম্ভব নয়। ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইজ নট এনাফ’ অথবা ‘ডাই অ্যানাদার ডে’ নিয়ে আতিশয্য যে কোনও বন্ড-ভক্তেরই রয়েছে। পরে ব্রসনান অবশ্য সরে যান বন্ড-ভূমিকা থেকে। তাঁর জায়গায় অভিষিক্ত হন ড্যানিয়্যাল ক্রেগ। এমনটা হয়েই থাকে। বন্ডের চিরযুবক চরিত্রে কোনও অভিনেতাই স্থায়ী হতে পারেন না। সঁ কোনারি ব্যতিরেকে আর কোনও অভিনেতাই বন্ড চরিত্র থেকে অবসৃত হয়ে বিশেষ একটা সুবিধে করতে পেরেছেন বলে মনে হয় না। কিন্তু তাই বলে যে ভূমিকায় সম্প্রতি দেখা গিয়েছে পিয়ের্স ব্রসনানকে, তা কোনও বন্ড-অভিনেতাই কল্পনা করতে পারবেন না।

সম্প্রতি একটি জনপ্রিয় পানমশলার বিজ্ঞাপনে ‘বন্ড’ হয়েই দেখা দিয়েছেন ব্রসনান। হিরে নয়, বোমার গোপন ফর্মুলা নয়, ভিলেনদের সঙ্গে জান কবুল করে লড়ে যাচ্ছেন এক কৌটো পানমশলার জন্য। বন্ডের এহেন অবস্থা দেখে হতাশায় ভেঙে পড়েছেন তাঁর অসংখ্য ভারতীয় ভক্ত। টুইট করে জানাচ্ছেন মনোবেদনা। কিন্তু তাতে বন্ড-রূপী ব্রসনানের কিছু যায় বা আসে বলে মনে হচ্ছে না। তিনি সম্ভবত ডুবে রয়েছেন পানমশলার মৌজে।

দেখুন সেই ভিডিও

বন্ড-ভক্তদের হতাশ টুইট