এমনটা যে হতে পারে, তা কস্মিনকালেও ভাবতে পারেনননি রবীন্দ্রনগর মহেশতলার বাসিন্দা আয়নুদ্দিন মণ্ডল। জিও-র ‘ফ্রি ওয়েলকাম অফার’ শেষ হতে এখনও ১ মাসের বেশি সময় বাকি। সেপ্টেম্বরের শুরুতে এই ফ্রি পরিষেবার ঘোষণার সময়ে জিও-কর্ণধার মুকেশ অম্বানী জানিয়েছিলেন ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই পরিষেবা একদম বিনামূল্যে পাওয়া যাবে। কিন্তু, আয়নুদ্দিনের কাছে ২৭ হাজার টাকার বিল পাঠিয়েছে রিলায়েন্স জিও। 

বিলের প্রতিলিপি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড হওয়ার পর থেকে তা ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। কলকাতা শহরের জিও কাস্টমাররা সকলেই আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। অনেকে রিলায়েন্স জিও-র সিম খুলে রেখেছেন অথবা, সিমটাকে ইনঅ্যাক্টিভ মোডে রেখে দিচ্ছেন। 

রিলায়েন্স জিও এই সেই বিল যা জাল বলা হচ্ছে

আয়নুদ্দিন ঠিক কবে এই বিলটি পেয়েছিলেন, তা জানা না গেলেও, বিলের একটা জায়গায় স্পষ্টই লেখা রয়েছে ২০ নভেম্বরের মধ্যে বকেয়া বিল না মেটালে আয়নুদ্দিনকে ২৭,৭১৮ টাকার জায়গায় তাঁকে ২৮,৮০০ টাকা দিতে হবে। কারণ লেট ফ্রি ধরা হয়েছে ১,১০০টাকা। 

আয়নুদ্দিন মণ্ডলের সঙ্গে বহুবার যোগাযোগের চেষ্টাও করা হয়েছিল। কিন্তু, তাঁর ফোন সুইচড অফ থাকায় কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। যদিও, রিলায়েন্স জিও-সূত্রে এই বিলকে জাল বলা হয়েছে। এই জাল বিল সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে জিও। এমনিতেই, স্লো-ইন্টারনেট স্পিড ইস্যুতে বার বার কাঠগড়ায় উঠেছে জিও। তারমধ্যে এই বিলের গেরো। অল্প সময়ে জিও যেভাবে কাস্টমার বেস বানিয়েছে, তাতে স্বাভাবিকভাবেই আতঙ্কিত মোবাইল পরিষেবা প্রদানকারী অন্য সংস্থাগুলি। রিলায়েন্স জিও-সূত্রে দাবি করা হয়েছে, ‘ফ্রি ওয়েলকাম অফার’ আরও ৩ মাস বাড়াতে চলেছে সংস্থা। এতে অন্যান্য মোবাইল সংস্থাগুলি আরও বিপদের আশঙ্কা করে এখন জিও-র উপরে কোনওভাবে কালি ছেটাতে চাইছে বলেও অনেকের অভিযোগ।

আরও পড়ুন... 

অবশেষে সুখবর! মেয়াদ বাড়ছে রিলায়েন্স জিও-র ‘ফ্রি ওয়েলকাম অফার’-এর! 

রিলায়েন্স জিও এনে দিয়েছে উদ্দাম যৌনতার সুযোগ, ভারতের পক্ষে কতটা ভাল এই অফার?