ডিসেম্বর মাসে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন করিনা। বর্তমানে করিনা-সইফের ঘর আলো করে রয়েছে তাঁদের ছেলে তৈমুর। গর্ভধারণের সময়ে বেশ খানিকটা মেদ জমে গিয়েছিল করিনার শরীরে। প্রায় ১৮ কেজি ওজন বেড়ে গিয়েছিল তাঁর। সন্তান প্রসবের পরে স্বভাবতই আবার নায়িকা-সুলভ তন্বী চেহারায় ফিরতে চাইছেন তিনি। কিন্তু ওজন কমানোর জন্য তিনি নিয়েছেন এক অভিনব কৌশল। 

করিনাদের পরিবারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিশেষ সূত্র সংবাদমাধ্যমকে জানাচ্ছে, ‘প্রসবের প্রায় ৪০ দিন পর থেকে ওজন কমানোর জন্য সচেষ্ট হন করিনা। হালকা এক্সারসাইজের পাশাপাশি যোগ ব্যয়ামও শুরু করেন। কিন্তু গত দু’ সপ্তাহে তিনি রীতিমতো ওয়ার্কআউট এবং পিলেটস (পেটের মেদ কমানোর জন্য বিশেষ ব্যয়াম) শুরু করেছেন। সেই সঙ্গে ডায়েটিসিয়ান রুজুতা দিওয়াকরের পরামর্শ নিয়েও চলেছেন।’ 

এই সব কৌশলে ১২ কেজি ওজন কমিয়ে ফেলেছেন করিনা। মে মাস থেকে শুরু হচ্ছে করিনার পরবর্তী সিনেমা ‘ভিরে দি ওয়েডিং’-এর শ্যুটিং। তার আগে আগামী এক মাসে আরও বেশ কিছুটা ওজন কমানোর পরিকল্পনা করছেন করিনা। 

রুজুতা দিওয়াকর জানাচ্ছেন, করিনা তাঁকে লাইভ চ্যাটে বলেছেন যে, তিনি রাতারাতি রোগা হতে চান না। কারণ নিছক ওজন কমানো তাঁর লক্ষ্য নয়। তিনি চান ভাল থাকতে, খুশি থাকতে, এবং এনার্জেটিক হয়ে উঠতে। রুজুতা জানাচ্ছেন, সন্তানের জন্মের পরে যে ভাবে ধীরে ধীরে ওজন কমানোর পরিকল্পনা করেছেন করিনা, তা বেশ অভিনব। কারণ অধিকাংশ নায়িকাই নাকি তড়িঘড়ি রোগা হতে চান। অথচ গর্ভধারণের পরে ধীরে ধীরে ওজন কমানোই রোগা হওয়ার স্বাস্থ্যসম্মত পদ্ধতি বলে জানিয়েছেন রুজুতা।