খালিদ জামিল আইজল এফসি-কে আইলিগ দিয়েছিলেন। আবার পাহাড়ে গিয়ে আইলিগ জয়ী কোচকেই শুনতে হল, তিনি বিশ্বাসঘাতক। 

মঙ্গলবার খেলার শেষে ছন্দ কাটল আইজলে। দুই কোচ হাত মেলালেন না। আইজল সমর্থকরা ম্যাচ চলাকালীন ‘দুয়ো’ দিয়ে গেলেন ইস্টবেঙ্গলকে। গ্যালারিতে খালিদ জামিলের ছবি দেখা গেল। সেই ছবির গায়ে ভাল মন্তব্য ছিল না। লেখা ছিল, খালিদ জামিল বিশ্বাসঘাতক। ইস্টবেঙ্গলের সঙ্গে কবে বিশ্বাসঘাতকতা করবে? 
সোমবার ম্যাচের আগের দিন ভরা সাংবাদিক বৈঠকে ইস্টবেঙ্গল কোচের মন্তব্যের প্রেক্ষিতে উত্তাল হয়ে ওঠে পাহাড়। খালিদের মন্তব্যের পরে রাতারাতি প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠাতে হয় আইজল এফসি-কে।

কে ঠিক আর কেইবা বেঠিক তা প্রমাণের চেষ্টা শুরু হয়ে যায়। ম্যাচের আগেরদিন সাংবাদিক বৈঠকে ঠিক কী বলেছিলেন খালিদ? এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে লাল-হলুদ কোচ বলেছিলেন, ‘‘আমি আইজল ছেড়ে যাইনি। আইজলই আমাকে চলে যেতে বলেছে।’’

এই মন্তব্য ভাল ভাবে নেননি আইজলের ফুটবলপাগল ভক্তরা। তাঁরা ক্ষেপে যান। খালিদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন খেলা চলাকালীন। আগুন জ্বলে ওঠে খেলার শেষে। ইস্টবেঙ্গলের ড্রেসিং রুমে ঢোকার চেষ্টা করেন আইজল-ভক্তরা।

সোমবার খালিদ জামিলের মন্তব্যের পরে আইজল ক্লাবের থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়। সেখানে লেখা হয়, ‘‘খালিদ জামিল নিজেই আইজল এফসি ছেড়ে চলে গিয়েছেন। ওঁর চুক্তি শেষ হয়ে গিয়েছিল। খালিদ জামিল নিজেই আর নতুন চুক্তিতে সই করতে চাননি।’’