বাংলা টেলিভিশনের দর্শক হয়তো তাঁকে ছোটপর্দার নেগেটিভ চরিত্রের অভিনেত্রী হিসেবে চেনেন কিন্তু নিবেদিতা মুখোপাধ্যায়ের আসল পরিচয় সম্পর্কে অনেকেই ওয়াকিবহাল নন। তিনি এই মুহূর্তে বাংলা থিয়েটারের সেরা অভিনেত্রীদের একজন। ‘চেতনা’ নাট্যগোষ্ঠীর মুখ্য অভিনেত্রী, সুজন নীল মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী এবং বাংলা থিয়েটারের অন্যতম লেজেন্ড অরুণ মুখোপাধ্যায়ের পুত্রবধূ তিনি। 

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

সাম্প্রতিক সময়ের দু’টি প্রযোজনা, ‘ঘাসিরাম কোতোয়াল’ এবং ‘ডন’ যাঁরা দেখেছেন, তাঁরাই একমাত্র জানেন যে দর্শককে কীভাবে চুম্বকের মতো টেনে রাখেন তিনি। সেই নিবেদিতা মুখোপাধ্যায়কে জি বাংলা-র ‘কৃষ্ণকলি’ ধারাবাহিকে যেমনটা দেখেন দর্শক তেমনটা একেবারেই নন তিনি বাস্তবে। 

নিবেদিতা ও নীল মুখোপাধ্যায়। ছবি: ফেসবুক পেজ থেকে

অত্যন্ত মিষ্টভাষী, পরিশীলিত এবং সহজ মানুষ হিসেবেই তিনি পরিচিত বাংলা থিয়েটার ও বাংলা ছবির জগতে। ওই ধারাবাহিকে যেমন তাঁকে মায়ের চরিত্রে দেখছেন এখন দর্শক, বাস্তবেও তিনি একজন অত্যন্ত দায়িত্বশীল মা। টেলি-নায়ক অভিজিৎ ভট্টাচার্য যতটা হ্যান্ডসাম, নিবেদিতার নিজের ছেলেও অত্যন্ত সুদর্শন, শুধু তার বয়সটা কিঞ্চিৎ কম, মাত্র ১৪। ছেলে যতদিন ছোট ছিল, সেই সময়টা পুরোপুরি ছেলেকেই দিয়েছেন নিবেদিতা। টেলিপর্দা তো নয়ই, কিছুটা সময় থিয়েটার থেকেও দূরে থাকতে হয়েছে তাঁকে। 

সম্প্রতি ছেলের সঙ্গে নিজের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন নিবেদিতা। সঙ্গে লিখেছেন একটি মজার ক্যাপশন— ‘আ পজেসিভ মম উইথ অ্যাগ্রেসিভ সন’। নিবেদিতা ও নীল মুখোপাধ্যায়ের ছেলের নাম একনাথ মুখোপাধ্যায় এবং ডাক নাম একু। তিন প্রজন্মের থিয়েটার পরিবারের সদস্য একনাথ নিজেও একজন মগ্ন থিয়েটারপ্রেমী।