রাশিয়া বিশ্বকাপে কোটি কোটি ভক্তের প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। মেসি আটকে যেতেই আর্জেন্টিনার সফর শেষ প্রি কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে। তার পরেই প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল, মেসি আরও একবার অবসর নিয়ে নেবেন না তো। বিশ্বজোড়া অগণিত সমর্থকদের আশ্বস্ত করে মেসি যদিও এখন কোনও সিদ্ধান্ত নেননি। মৌনব্রত পালন করছেন।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

কিন্তু এই মৌনতাতেই ‘বিপদ’ দেখছেন অনেকে। আর্জেন্টিনীয় প্রচারমাধ্যমের খবর, আগামী এক বছর মেসিকে জাতীয় দলের জার্সিতে খেলতে না-ও দেখা যেতে পারে। মেসি অবশ্য এখনও সরকারিভাবে এমন ঘোষণা করেননি। সূত্রের খবর, যুক্তরাষ্ট্রে সেপ্টেম্বরেই আর্জেন্টিনা নামছে জোড়া প্রীতি ম্যাচে— গুয়াতেমালা ও কলম্বিয়া। অক্টোবরে ব্রাজিলের বিরুদ্ধে সৌদি আরবে খেলার কথা আর্জেন্টিনার। কোনও ম্যাচেই থাকছেন না মেসি।

মেসির পাশে দাঁড়িয়ে ‘বন্ধু’ কার্লোস তেভেজও বলে দিয়েছেন, ‘‘যদি মেসি আর কোনওদিন জাতীয় দলে না ফেরে, তাহলে সেটাও যুক্তিযুক্ত। কারণ নিজের পুরোটা দেওয়ার পরেও কেউ যদি সমালোচিত হয়, সেটা হজম করাটা কঠিন। এমন অবস্থার মধ্যে দিয়ে আমি গিয়েছি।’’

শুধু তেভেজই নন, মেসির মা সেলিয়া কুট্টিসিনিও দেশের সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, গোটা দেশের সমালোচনায় তীব্রভাবে আহত হয়েছেন মহাতারকা। বার্সেলোনা কিংবদন্তি হ্রিস্টো স্তোইচকভ জানিয়েছেন, সমর্থক ও মিডিয়ার কাছ থেকে মেসি যে ব্যবহার পেয়েছেন, তা অপ্রত্যাশিত।

আর্জেন্টিনার ফুটবল ফেডারেশন অস্থায়ীভাবে জাতীয় দলের কোচ করেছে যুব দলের দায়িত্বে থাকা লিওনেল স্কালোনিকে। তাঁর সহকারী হিসেবে থাকছেন পাবলো আইমারও। স্কালোনি ও আইমার আপাতত আর্জেন্টিনীয় ফুটবলকে গড়ে তোলার দায়িত্বে। তবে মেসিকে ছাড়াই স্কালোনি-আইমারকে প্রাথমিক পরিকল্পনা কষতে হবে।

বলা হচ্ছে, আগামী বছর কোপা আমেরিকাতে দেশের জার্সিতে প্রত্যাবর্তন ঘটাবেন মেসি। তবে এর মধ্যে হঠাৎ চিরতরে বুটজোড়া তুলে রাখলে অবাক হওয়ার কিছু নেই।