আলিয়া ভট্টর দিদি তিনি। মহেশ ভট্টর মেয়ে। কিন্তু শাহিন ভট্ট বারবার শিরোনামে এসেছেন অন্য এক কারণে। তাঁর বারবার আত্মহত্যার চেষ্টা নিয়ে শোরগোল পড়েছে মিডিয়ায়। কিন্তু পারিবারিক ভাবে কখনওই এই বিষয়ে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি।

অবশেষে দীর্ঘদিনের নীরবতা ভাঙলেন মহেশ ভট্ট। এক সর্বভারতীয় গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে মহেশ জানালেন, মেয়ে শাহিনের আত্মহত্যার চেষ্টার আসল কারণ।

মহেশ জানালেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরে শাহিন মানসিক অবসাদে (ক্লিনিক্যল ডিপ্রেশান) ভুগছে। আগামী অক্টোবর মাসে শাহিন একটি স্মৃতিকথা বই আকারে প্রকাশ করতে চায়। সেখানে ধরা রয়েছে তার দিনযাপনের যন্ত্রণার কথা।’’

এরপর মহেশ আরও যোগ করেন,শাহিন প্রথম আত্মহত্যার চেষ্টা করে ১২ বছর বয়সে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

এই প্রসঙ্গেই উঠে আসে ২০১৩ সালে আত্মহত্যা করা অভিনেত্রী জিয়া খানের কথা। মহেশ বলেন, ‘‘জিয়া খান একবার আমার কাছে অভিনয়ের সুযোগ চেয়েছিল। আমি তাঁকে তখন সুযোগ দিতে পারিনি। তার কিছুদিন পরে তাঁর আত্মহত্যার খবর পাই। ঘরে হোক বা বাইরে, এই সত্য থেকে মুক্তি নেই।’’

ডায়াবেটিস যেমন একটি রোগ, তার চিকিৎসা আছে এবং লুকনোর কোনও কারণ নেই, মানসিক অবসাদও ঠিক তেমন, এমনটাই মনে করেন মহেশ।