বৃহস্পতবার সাধারণ বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। তার আগেই রাজ্য বাজেট পেশ করে দিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আর এর পরেই নোটবাতিল ইস্যুতে কেন্দ্রকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নোটবাতিল থেকে জিএসটি, সব ইস্যুতেই বারবার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরোধিতা করে এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেই ধারা বজায় থাকল রাজ্য বাজেটেও। এদিন বাজেট পেশের পরে অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রকে পাশে নিয়ে দীর্ঘ সাংবাদিক সম্মেলন করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে কার্যত গোটা বাজেট নতুন করে নিজের ভাষায় বর্ণনা করেন মমতা। আর সেই প্রসঙ্গেই টেনে আনেন কেন্দ্রের বঞ্চনা থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রীয় নীতির ইস্যু।

নোটবাতিলের পরে অর্থনীতির ক্ষতি থেকে জিএসটি লাগুতে রাজস্ব ক্ষতির কথাও বলেন মমতা। তার পরেই বলেন, নোটবাতিলের সময়ে প্রধানমন্ত্রী কালো টাকা উদ্ধারের কথা বলেছিলেন। এবার শ্বেতপত্র প্রকাশ করে সেই তথ্য সামনে আনুক কেন্দ্র। দেশকে জানাক ঠিক কত কালো টাকা দেশ ও বিদেশ থেকে উদ্ধার করতে পেরেছে সরকার।

কালো টাকা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে শ্বেতপত্র প্রকাশের দাবি নতুন কিছু নয়। তবে সাধারণ বাজেটের আগের বিকেলে এই দাবি অবশ্যই কেন্দ্রের কাছে বড় চাপ। বৃহস্পতিবার সাধারণ বাজেটে নোটবাতিল ও জিএসটি নিয়ে নিশ্চয়ই বাজেট বক্তৃতায় সাফল্য বর্ণনা করবেন অর্থমন্ত্রী। পরে প্রধানমন্ত্রীও এ নিয়ে বক্তব্য রাখতে পারেন। কিন্তু অতীতের মতো এবারেও কি কালো টাকা উদ্ধার নিয়ে নীরব থাকবেন জেটলি কিংবা মোদী?