স্বামী সামির সঙ্গে বিচ্ছেদ এখনও ঘটেনি হাসিনের। কন্যা আইরাকে নিয়ে যাতে অকূল পাথারে না পড়তে হয়, সেজন্য মডেলিং ও অভিনয় জগতে ফিরে গিয়েছিলেন হাসিন জাহান। তবে এই কারণেই আদালতে বিপাকে পড়তে হল তাঁকে। উপার্জনক্ষম স্ত্রী-কে কেন খোরপোশ দিতে হবে, এমনই যুক্তি তুলে সামির আইনজীবী বাজিমাত করলেন আলিপুর আদালতে। তাই খারিজ হয়ে গেল হাসিনের খোরপোশের আবেদন।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

তিনি রোজগেরে নন, এমন দাবি তুলেই আদালতে খোরপোশের দাবি করেছিলেন হাসিন। সূত্রের খবর, হাসিন নাকি সামির কাছে মাসিক ১০ লক্ষ টাকা খোরপোশের আবেদন করেছিলেন। এর মধ্যে ৭ লক্ষ টাকা তাঁর নিজের এবং ৩ লক্ষ টাকা মেয়ের পড়াশোনার খরচ বাবদ চেয়েছিলেন হাসিন। হাসিনের আইনজীবীর বক্তব্য ছিল, সামি বার্ষিক প্রায় ১০ কোটি টাকা উপার্জন করেন। তাই মাসিক ১০ লক্ষ টাকা খোরপোশ বাবদ দিতে তাঁর অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

কিন্তু হাসিনের আইনজীবী সামির রোজগারের নির্দিষ্ট অঙ্ক নিয়ে কোনও প্রমাণ পেশ করতে পারেননি। এমন সময়েই সামির আইনজীবী বলে দেন, সম্প্রতি মডেলিং জগতে ফিরে গিয়েছেন হাসিন। হিন্দি সিনেমাতে অভিনয়ও করছেন। তাই রোজগারের তাঁর অভাব হওয়ার কথা নয়। এর পর হাসিনের আইনজীবী জানান, এখনও স্থায়ী কোনও উপার্জনের হদিশ পাননি হাসিন। এবং এখনও কাজের খোঁজে রয়েছেন তিনি। তাই খোরপোশ বন্ধ হলে সমস্যায় পড়বেন তাঁর মক্কেল।

যদিও এমন দুর্বল যুক্তিতে সিলমোহর দেয়নি আদালত। তবে জানা গিয়েছে, খোরপোশ না দিতে হলেও মেয়ের পড়াশোনা ও অন্যান্য সাংসরিক খরচ বাবদ মাসিক ৮০ হাজার টাকা দিতে হবে। এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চতর আদালতে আবেদন করবেন সামি-পত্নী।