নিজের দেশকে বিভিন্ন ভাবে ডুবিয়ে তাঁরা এই মুহূর্তে ‘পলাতক’। বিজয় মাল্য, নীরব মোদী বা মেহিল চোকসির মতো ভিআইপি অপরাধীরা কেন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন, তার একটা সরল উত্তর ক’দিন আগেই মাল্য প্রকারান্তরে জানিয়েছেন ব্রিটিশ আদালতে। 

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, মাল্য ওই আদালতে মুম্বই জেলগুলির করুণ অবস্থা নিয়ে সরব হন। তাঁর মতে, ভারতীয় কারাকক্ষগুলি অস্বাস্থ্যকর, বসবাসের অযোগ্য। মাল্যর বক্তব্য শোনার পরে ওই ব্রিটিশ আদালত ভারতীয় কারা কর্তৃপক্ষকে তিন সপ্তাহের মধ্যে মুম্বইয়ের আর্থার রোড জেলের কারাকক্ষের ভিডিও জমা দিতে বলে। প্রসাঙ্গত, এই কারাগরেই মাল্যকে রাখার কথা ভাবা হয়েছে। 

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

প্রতিবেদন থেকে জানা গিয়েছে, আর্থার রোড জেল কর্তৃপক্ষ তাদের জেল সেল-গুলির একাংশের সংস্কার করতে চায়। আগামী ৬ মাসের মধ্যে এই কারাগারে যুক্তরাজ্যের কারাকক্ষের সমতুল্য কারাকক্ষ তৈরি করার কথা ভাবছে কর্তৃপক্ষ। সেই সঙ্গে নতুন কারাকক্ষগুলি যাতে মানবাধিকার আন্দোলনকারীদের দাবি মোতাবেক হতে পারে, সেদিকেও দৃষ্টি রাখা হবে বলে জানা গিয়েছে। 

কিছু পুরনো কারাকক্ষ ভেঙে এই নতুন ‘উন্নততর’ সেল তৈরি করা হবে, এমনটাই খবর ওই সংবাদমাধ্যমের। ইতিমধ্যেই আর্থার রোড জেল কর্তৃপক্ষ ভিডিও ক্লিপ জমা দিয়েছে। তাতে দেখানো হয়েছে, এই কারাগারের বেশ কয়েকটি কক্ষে টিভি, ফ্যান পর্যন্ত রয়েছে। কিন্তু একথাও সত্য যে, ওই জেলে ৮০০ বন্দির থাকার কথা। কিন্তু সেখানে রয়েছে ২৫০০-এরও বেশি বন্দি। 

আপাতত, ভিআইপি ‘আপ্যায়ন’-এর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতীয় কারা-কর্তৃপক্ষ। মুম্বইয়ের আর্থার রোড জেল তাঁর ‘উপযোগী’ হলেই কি ধরা পড়বেন বিজয় মাল্য বা নীরব মোদীর মতো অতিথি? এই প্রশ্নের অবশ্য কোনও উত্তর পাওয়া যায়নি।