‘সারফারোজ’ (১৯৯৯) ছবিতে একটি ছোট্ট চরিত্র দিয়েই বলিউডে পা রাখেন এই পাওয়ারফুল অভিনেতা। তারপরে বেশ কয়েকটি হেভিওয়েট ছবিতে (‘জঙ্গল’, ‘মুন্নাভাই এমবিবিএস’, ‘ব্ল্যাক ফ্রাইডে’, ‘নিউ ইয়র্ক’, ‘দেব ডি’, ‘পিপলি লাইভ’) তাঁকে ছোট-খাটো রোল বা পার্শ্বচরিত্রে দেখা যায়। 

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

নিজের প্রতিভা ও কঠোর পরিশ্রমের দাম পান ২০১১ সালের ‘কহানি’ ছবিতে। একেবারে আনইম্প্রেসিভ চেহারার একজন দুঁদে পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অসম্ভব ভাল অভিনয় করে সকলের নজর কাড়েন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি। তার পরে আর ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। প্রসঙ্গত, এই ছবির জন্য জাতীয় পুরষ্কারও জয় করেন অভিনেতা।

বর্তমানে ছোট ভাই, শামাস নওয়াব সিদ্দিকির সঙ্গে মুম্বইয়েই থাকনে নওয়াজ। যদিও তিনি বিবাহিত। এক মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে তাঁর। 


এই সেই ছবি, যা প্রশ্ন তুলেছে! ছবি— অভিনেতার ইনস্টাগ্রাম পেজ

সম্প্রতি ইনস্টাগ্রাম পেজে এক সুন্দরী তরুণীর সঙ্গে নিজের একটি ছবি পোস্ট করেন নওয়াজ। আর তাতেই শোরগোল পড়ে যায় নেটিজেনদের মধ্যে। ছবির ক্যাপশানটিই মূলত আলোড়ন ফেলেছে। যেখানে নওয়াজ লিখেছেন, ‘ইয়ে লড়কি মেরে রোম রোম মে হ্যায়’। অর্থাৎ, ‘এই মেয়েই আমার সব কিছুতে’।

স্বাভাবিকভাবেই কৌতুহল সৃষ্টি হয়েছে এই তন্বীকে নিয়ে। তিনি কি নওয়াজের আসন্ন কোনও ছবির কো-স্টার? নাকি, নওয়াজের জীবনের রোম্যান্টিক কেউ? উত্তর রয়েছে শুধুমাত্র ‘বাবুভাই বন্দুকবাজ’এর কাছেই!