তিনি টেলিভিশনে খবর পড়েন। এবং সেই কাজের সূত্রেই যে এমন খবর পড়তে হবে, তা বোধহয় নিজেও ভাবেননি সুপ্রীত কউর। 

ছত্তিশগড়ের একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আইবিসি-২৪। সেখানেই সংবাদ-পাঠিকা হিসেবে কাজ করেন সুপ্রীত কউর। গতকাল, শনিবার সকালের লাইভ নিউজ পড়ার সময়ে একটি দুর্ঘটনার খবর আসে নিউজ ডেস্ক-এ। 

দুর্ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন সুপ্রীত কউর। জানতি চান ঘটনা সম্পর্কে। জানা যায়, রাজ্যের মহাসামুন্দ জেলার পিথারায় এক গাড়ি দুর্ঘটনায় তিনজন ঘটনাস্থলেই মারা গিয়েছেন। গাড়িতে সওয়ারি ছিলেন পাঁচজন। এবং গাড়িটি ছিল রেনো ডাস্টার। 

খবরটি পড়ার সময়ই সুপ্রীত বুঝতে পারেন যে দুর্ঘটনাগ্রস্থ গাড়িটি তাঁর স্বামীর। কারণ সুপ্রীত জানতেন যে, ওই সময়ে চার বন্ধুকে নিয়ে ওই পথেই যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু, খবর পড়াকালীন এক মুহূর্তের জন্যও সুপ্রীতের গলা কেঁপে ওঠেনি। খুব স্বাভাবিক ভাবেই তিনি তাঁর দায়িত্ব সামলে নেন। 

২৮ বছরের সুপ্রীত কউরের সঙ্গে মাত্র এক বছর আগেই বিয়ে হয়েছিল হর্ষদ কাওয়াড়ের। আদতে ভিলাইয়ের বাসিন্দা সুপ্রীত কউর, বিয়ের পরে স্বামীর সঙ্গে রায়পুরে থাকতেন। 

খবর পড়া শেষ করেই দুর্ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যান সুপ্রীত। স্বামীর দুর্ঘটনার খবরই যে তিনি লাইভ পড়ছিলেন তা জানতেন সুপ্রীতের সহকর্মীরাও। কিন্তু, কেউই তা আর বলতে পারেননি তাঁকে। তবে, সকলেই সুপ্রীতের দায়িত্ববোধ ও সাহসে অনুপ্রাণিত। 

দেখুন ভিডিও—