একটি ধারাবাহিক কতটা সফল হবে সেটা মোটামুটি এক থেকে দু’সপ্তাহের মধ্যেই বোঝা যায়। একমাস পেরিয়ে গিয়েও যদি টিআরপি তালিকার মিডল টায়ারে প্রবেশ না করা যায় তবে বুঝতে হবে যে সেই ধারাবাহিকটির বড়সড় ট্র্যাক পরিবর্তন প্রয়োজন। ‘বিকেলে ভোরের ফুল’-এর টিআরপি রেটিং খুব ভাল না হলেও ভালর দিকে বলা যায়। ভাবগতিক দেখে মনে হচ্ছে তালিকায় আরও একটু উপরের দিকে যাবে এই ধারাবাহিক। তার অনেকগুলি কারণ আছে তবে প্রধান কারণ তিনটি— 

১. স্নেহাশিস চক্রবর্তীর চিত্রনাট্য এবং তুখোড় সংলাপ

২. নায়কের ভূমিকায় অভিজ্ঞ অভিনেতা অমিতাভ ভট্টাচার্য

৩. নায়িকার ভূমিকায় সুদীপ্তা চক্রবর্তীর সাবলীল অভিনয় 

বাংলা টেলিভিশনের দর্শক এক কথায় স্বীকার করবেন যে সুদীপ্তাকে নায়িকার ভূমিকায় তাঁকে দারুণ মানিয়েছে। কিন্তু চরিত্রের জন্য তাঁর বেশ জবরদস্ত একটা লুকসেটিংও হয়েছে। আর সঙ্গে অভিনয়টাও বেশ স্বচ্ছন্দ। সব মিলিয়ে প্রথম দু’সপ্তাহেই জমিয়ে দিয়েছেন ধারাবাহিক। তবে বাস্তবে তাঁর লুকটা 

অনেকটা অন্য রকম। কেমন, সেটা নীচের ছবিগুলি দেখলেই বুঝতে পারবেন—  

ছবি: সুদীপ্তার ফেসবুক পেজ থেকে