প্রথমে একটু ঠান্ডা লাগবে, কিন্তু ৩০-৪০ সেকেন্ডের মধ্যে তা সয়ে যাবে। আর তাতেই হবে উপকার। না, বরফ খাবেন না। বরং মাথা এবং ঘাড়ের সংযোগস্থলে যে বিন্দু ঠিক সেখানে প্রতিদিন মিনিট ২০ রাখতে হবে। একটু ঠান্ডা লাগবে। কিন্তু সেটা সইয়ে নিলে শরীরের অনেক রোগ থেকে মুক্তি মিলতে পারে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। তবে মনে রাখবেন বরফ কখনওই ওষুধ নয়। এটি ভাল থাকতে সাহায্য করে।

মেরুদণ্ড এবং মাথার খুলির সংযোগস্থলে রয়েছে ভার্টিব্রা বা সুশুন্মাকাণ্ড। শরীরের সমস্ত নার্ভ বা স্নায়ুগুলি মস্তিষ্কের সঙ্গে গিয়ে মিলেছে সেখান থেকেই। সেখানেই এক টুকরো বরফ চেপে রাখতে হবে। কিছুক্ষণ ঠান্ডা লাগলেও ওই নির্দিষ্ট স্থানে হালকা গরমভাব অনুভব করবেন। এটা দেহের সমস্ত স্নায়ুকে চাপমুক্ত করে।

এই পদ্ধতিতে কী কী রোগমুক্তি ঘটে জেনে নিন—

১। হার্টের সমস্যা দূরে রাখে

২। ভাল ঘুম হবে, শরীর থাকবে তরতাজা

৩। গাঁটের ব্যথা, দাঁত এবং মাথাব্যথার সমস্যাও কমায়

৪। হজমশক্তি বাড়ায়, গ্যাস, অম্বলের সমস্যা কমে

৫। ঘনঘন ঠান্ডা লাগা থেকেও মুক্তি মেলে

৬। নার্ভের সমস্যায় উপকার হয়

৭। হাইপার টেনশন, আর্থ্রাইটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে

৮। হাঁপানি থেকে রেহাই মিলতে পারে

৯। শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক করে

১০। মহিলাদের ঋতুর সমস্যা কমিয়ে দেয়

১১। ক্লান্তি ভাব কমিয়ে দেয়

১২। অবসাদ থেকেও মুক্তি দেয়

আরও পড়ুন

গ্যাসের সমস্যা? কী খেলে হয়? সমাধান কী? ৫টি তথ্য...

ঘামের গন্ধ থেকে রেহাই পাবেন কীভাবে? জেনে নিন...

১৪টি টোটকা যা কাজে আসতে পারে