সন্ত্রাসের বীজ বপন করে চোরের মায়ের মতো বড় গলা করার অভিযোগ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নতুন নয়। কিন্তু, সেই গলা মাত্রা ছাড়াতে ছাড়াতে এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, আন্তর্জাতিক মহলও অবাক হয়ে যাচ্ছে। 

২৬/১১ ভারতবাসী শুধু নয়, বিশ্বের কাছে একটা কালো দিন। ৮ বছর আগে পাকিস্তানের মাটি থেকে এসে মুম্বইয়ের বুকে যে তাণ্ডব নৃত্য চালিয়েছিল ১০ জঙ্গি, তার বর্ষপূর্তি শনিবার। কিন্তু, সেই লগ্নে পাক বিদেশমন্ত্রী খওয়াজা আসিফ যে ধরনের উস্কানিমূলক মন্তব্য করলেন তাতে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে চলা অস্থিরতার মাত্রা আরও বেড়ে যেতে পারেই বলে মনে করা হচ্ছে। পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী খওয়াজা আসিফ শুক্রবার পাকিস্তানের ‘ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি’-তে বলেন, ভারতের হাতে একজন পাকিস্তানি সেনার মৃত্যু হলে পাল্টা ভারতের ৩ জন সেনাকে খতম করা হবে। এমনকী, দু’দেশের মধ্যে যুদ্ধ শুরু হলে ভারতকে চরম দুর্দশার মধ্যে ফেলবে পাকিস্তান। 

পাক বিদেশমন্ত্রী খওয়াজা আসিফ

নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর উত্তেজনায় ভারতের দিকেই আঙুল তুলেছেন খওয়াজা আসিফ। তাঁর অভিযোগ— পাকিস্তানের বুকে চলা সন্ত্রাসের মদত দিচ্ছে ভারত। এর প্রমাণ সম্বিলিত তথ্য এবং ভিডিও ‘ডসিয়র’ করে রাষ্ট্রপুঞ্জের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তান যাতে আর্থিকভাবে শক্তিশালী না হতে পারে তার জন্য ভারত সক্রিয় রয়েছে বলে দাবি করেছেন খওয়াজা আসিফ। তাঁর অভিযোগ, চিনের সঙ্গে পাকিস্তানের ‘ইকনমিক করিডর’-এর কাজ রূপায়ণে নানাভাবে বাধা দিচ্ছে ভারত। উপমহাদেশে যাতে শান্তি বজায় থাকে তার জন্য নাকি পাকিস্তান চেষ্টা করে যাচ্ছে। 

খওয়াজা আসিফের এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে এখনও মোদী শিবির থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া আসেনি। যদিও, জম্মু-কাশ্মীরে ভারত-পাক সীমান্ত বরাবার ঘন ঘন সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন হচ্ছে। এই নিয়ে শনিবার নয়াদিল্লিতে ডেপুটি পাক হাইকমিশনারকে ডেকে পাঠায় বিদেশমন্ত্রক। সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘনের জন্য পাকিস্তানি সেনাবাহিনীকে দায়ী করে ডেপুটি হাইকমিশনারের কাছে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়।

আরও পড়ুন... 

নোটবাতিলের বাজারে মোদীকে অপমান করতে গিয়ে গরাদের পিছনে ব্যবসায়ী! 

নোটবাতিল বিতর্কের মধ্যেই কি ঘনাচ্ছে ইন্দো-পাক যুদ্ধের সম্ভাবনা?