শুক্রবার বাংলা বনধ ডেকেছে সিপিএম। রাজ্যজুড়ে মনোনয়ন ঘিরে অশান্তির প্রতিবাদে ৬ ঘণ্টার বাংলা বনধের ডাক দিল সিপিএম। বুধবার বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু সাংবাদিক বৈঠক করে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

এর ঠিক পরে পরেই নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানিয়ে দেন বনধ হবে না। গাড়ি চলবে। সব কিছু সচল থাকবে। এই প্রসঙ্গে সিপিএমকে আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়েছে সিপিএম। 

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আক্রমণের বেশির ভাগ সময়টাই বিজেপিকে টার্গেট করলেও সিপিএমেরও নিন্দা করেন। এই সময়েই সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি এক বেফাঁস মন্তব্য করে ফেলেন। 

উল্লেখ্য, সিপিএম বনধ ডেকেছে সকাল ছ’টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত। রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য, ওই দিন সিবিএসই পরীক্ষা ও চৈত্র সেলের বাজার নষ্ট না করতেই কৌশলগত ভাবে বনধ ডেকেছে সিপিএম। শনি, রবি ছুটির আগে ছ’ঘণ্টার বনধের প্রভাব কার্যত অফিস কাছারির উপরেই পড়বে। 

কিন্তু কী করবেন সরকারি কর্মীরা? এমন প্রশ্নের জবাবে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘এমনিতেই সবাই ১১টা-১২টার সময়ে অফিসে আসে। সুতরাং বনধ হবে না। অফিস খোলা থাকবে।’’

রাজনৈতিক মহলের একাংশের বক্তব্য রাজ্য সরকার বনধ ব্যর্থ করার চেষ্টা করলেও সরকারি কর্মচারীদের বনধের সময় শেষ হওয়ার পরে অফিসে ঢোকার অনুমতিই দিয়ে দিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। একই সঙ্গে সামনে এনে দিলেন রাজ্যের কর্মসংস্কৃতির ‘প্রকৃত’ ছবি।