বাড়িতে কুকুর বা অন্য পোষ্য পোষেন? সেই নিয়ে বাড়িতে অশান্তি? এবার একটা জবরদস্ত কারণ পাবেন, পরিবারের পোষ্যের পক্ষে। সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে চমকপ্রদ তথ্য। জানা যাচ্ছে, বাড়িতে পোষ্য রাখলে তা আপনার শিশুর অ্যালার্জি সংক্রমণ রুখতে ও তাদের স্থূলত্ব নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।  

অনেকেই পরিবারের সদস্য হিসেবে কুকুর বা অন্য কোনও পোষ্য রাখার পক্ষে। কিন্তু বাড়িতে শিশু থাকলে এ ব্যাপারে পরিবারের অন্য সদস্যরা আপত্তি করেন। কিন্তু ইউনিভার্সিটি অব আলবার্তার গবেষকরা এ বিষয়ে গবেষণা করে যে সিদ্ধান্তে এসেছেন, তাতে উল্টে পোষ্য রাখার পক্ষেই জোরালো যুক্তি তৈরি হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, যে সব শিশুরা পোষ্যের সংস্পর্শে থাকে তাদের শরীরে অ্যালার্জির সম্ভাবনা অনেক কমে যায়। সত্তর শতাংশ ক্ষেত্রে এই শিশুদের পরিবারে পোষ্য হিসেবে কুকুরকে দেখা যায়। 

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, প্রায় দু’দশক ধরে এ ব্যাপারে গবেষণা চালানো হচ্ছে। দেখা গেছে শিশুদের অ্যাস্থমার মতো অসুখের সম্ভাবনা অনেক কমে গেছে পোষ্যদের সঙ্গে থাকার ফলে। আসলে পোষ্যদের শরীরে দু’রকমের জীবাণু লক্ষ করা গিয়েছে, যাদের উপস্থিতিতে অ্যালার্জি এবং স্থূলত্বের মতো অসুখ কম হয়। এমনকী এও দেখা গিয়েছে, অন্ত্বসত্ত্বা অবস্থায় হবু মায়েদের যোনিতে এক ধরনের সংক্রমণ হয়, যার ফলে জন্মের পরে নবজাতকের শরীরে নিউমোনিয়ার প্রকোপ দেখা দিতে পারে। বাড়িতে পোষ্য রাখলে এই সংক্রমণের সম্ভাবনা কমে।