গল্পের প্রয়োজনে অভিনেত্রীদের যেমন পুরুষ চরিত্রে অভিনয় করতে হয়েছে, উল্টোদিকে দেশি-বিদেশি বহু অভিনেতাই মহিলা চরিত্রে অভিনয় করে সুনাম কুড়িয়েছেন। ‘মিসেস ডাউটফায়ার’-এর রবিন উইলিয়ামস থেকে ‘চাচি ৪২০’-এর কমল হাসান। বাংলাতেও ভুরি ভুরি উদাহরণ রয়েছে। সম্প্রতি ‘জিও পাগলা’-তে বনি সেনগুপ্ত ও সোহম চক্রবর্তীও তাঁদের দক্ষতা দেখিয়েছেন। 

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

টেলিপর্দায় খোকাবাবু যেদিন প্রথম কান্তাবাঈ সেজে এল, দর্শক উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েছিলেন। এবার সেই কঠিন অভিনয়ের চ্যালেঞ্জ নিলেন রাজ ভট্টাচার্য। অবশ্য পুরোটাই চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে। কালারস বাংলার ধারাবাহিক ‘রেশম ঝাঁপি’-তে খুব তাড়াতাড়ি দেখা যাবে তাঁকে এক মহিলা ছদ্মবেশে। 

রাজ ভট্টাচার্য। ছবি: রাজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে

সাম্প্রতিক এপিসোডগুলিতে দেখা গিয়েছে যে রূপমতীর চক্রান্ত ফাঁস হয়ে গিয়েছে এবং পাশাপাশি সূর্য ও নন্দিনীর ছদ্মবেশও প্রকাশ্যে এসে গিয়েছে। ডামাডোলের মধ্যে গ্রেফতার হয়েছে নন্দিনীও, আইপিএস অফিসার সেজে প্রশাসনকে ধোঁকা দেওয়ার জন্য। এদিকে ইন্সপেক্টর ইন্দ্রজিৎ দেবের চরিত্রে বড়সড় টুইস্ট এসেছে। এই চরিত্রেই অভিনয় করছেন রাজ ভট্টাচার্য। 

২৩ ফেব্রুয়ারির এপিসোডে দেখা গিয়েছে যে নন্দিনীকে জোর করে আটকে রাখার জন্য এবং পদমর্যাদার অপব্যবহারের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে ইন্দ্রজিৎ দেবকে। কিন্তু ইন্দ্রজিৎ দেব যে সহজে ছেডে় দেওয়ার পাত্র নয়, তা বোঝা গেল সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ ভট্টাচার্যের একটি পোস্ট থেকে। শ্যুটিং ফ্লোর থেকে অন্যান্য কলাকুশলীদের সঙ্গে এই ছম্মক ছল্লো অবতারে লাইভ এলেন রাজ ভট্টাচার্য।

অর্থাৎ খুব তাড়াতাড়ি মহিলার ছ্দ্মবেশে আবারও সূর্য-নন্দিনীর জীবনে ফিরতে চলেছে ইন্দ্রজিৎ। কিন্তু কীভাবে, সেটা ক্রমশ প্রকাশ্য।