অসহিষ্ণুতা বিতর্কে একজন মুখ খুলেই মৌনী। আরেকজন জানিয়েছেন, তিনি আদতে বিতর্কিত কিছু বলেনইনি!
তাঁরা বলিউডের দুই খান— আমির এবং শাহরুখ। আমিরের গতকালের মন্তব্যে বলিউড তেতে উঠতেই শাহরুখের গলায় শোনা গিয়েছে, ‘‘আমি তো কখনওই ভারতকে অসহিষ্ণু রাষ্ট্র বলিনি।’’ মুম্বইয়ের একটি ইংরেজি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শাহরুখ বলেছেন, ‘‘আমি কিছু বললেই তার ভুল ব্যাখ্যা হয়। এটাই ঝামেলার।’’ যা শুনে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই মনে করিয়ে দিচ্ছেন শাহরুখ সম্পর্কে বলিউডের তৃতীয় ‘গ্রেট’ খান সলমনের উক্তি, ‘‘শাহরুখ কিছু বলে আর আমাকে ব্যাখ্যা দিতে হয়।’’ প্রসঙ্গত, অসহিষ্ণুতা নিয়ে শাহরুখের মন্তব্যের পরেই কথাটা বলেছিলেন সলমন।
গতকাল অবশ্য শাহরুখ তাঁর আগের বক্তব্য ‘অস্বীকার’ করে বলেছেন, ‘‘(টেলিভিশন সাংবাদিক) অসহিষ্ণুতা সম্পর্কে আমার মত জানতে চাইলে প্রথমে কিছু বলতে চাইনি। পরে চাপাচাপি করায় শুধু বলেছিলাম, দেশকে আরও ধর্মনিরপেক্ষ এবং প্রগতিশীল করে তোলার উপরেই যুবসমাজের জোর দেওয়া উচিত। তারই ভুল ব্যাখ্যা হয়েছে।’’ যদিও ওই অনুষ্ঠানের ফুটেজ বলছে অন্য কথাই!
গতকালের মন্তব্যের পরে আজ পুরোপুরি নীরব থেকেছেন আমির। সংবাদমাধ্যমের আড়ালে তাঁর স্ত্রী কিরণ। যদিও ওই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে চলেছে বলিউডের একাংশ। এমনকী, অসহিষ্ণুতা প্রশ্নে যিনি নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন সেই নাসিরুদ্দিন শাহও আজ বলেন, ‘‘আমির যে অসহিষ্ণুতার কথা বলেছেন, আমি কখনওই তা অনুভব করিনি। ওঁর মন্তব্য জনমানসে আতঙ্ক ছড়াতে পারে।’’ প্রবীণ অভিনেতা ওম পুরী আরও এক ধাপ এগিয়ে বলেছেন, ‘‘আমিরের ক্ষমা চাওয়া উচিত। অন্য কেউ এ রকম মন্তব্য করলে তাঁকে গ্রেফতার করা হতো।’’ আরেক প্রবীণ অভিনেতা ঋষি কপূরের পরামর্শ, ‘সমাজে গোলমাল দেখলে শোধরানোর চেষ্টা করুন, পালাবেন না। সেটাই নায়কোচিত’।
 অসহিষ্ণুতা বিতর্কে কেন্দ্রের সমর্থনে বলিউডের যে মোদীপন্থী অংশ মিছিল বার করেছিল, সেই অনুপম-ব্রিগেড আজ সাতসকালেই আসরে নেমে পড়ে। অনুপম খের নিজেই গুচ্ছ গুচ্ছ টুইট করেন। একটিতে তিনি লেখেন, ‘‘প্রিয় আমির, আপনি কি কিরণকে জিজ্ঞেস করেছেন যে, উনি কোন দেশে যেতে চান? ওঁকে কি বলেছেন, এই দেশই আপনাকে আমির খান করেছে’?  তাঁর আরেকটি টুইট, ‘ইনক্রেডিবল ইন্ডিয়া ঠিক কবে আপনার কাছে ইনটলারেন্ট ইন্ডিয়া হয়ে উঠল’?
আমির অভিনীত ‘রঙ্গীলা’র পরিচালক রামগোপাল বর্মাও আজ টুইট করেছেন, ‘ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় তারকা আমির, শাহরুখ এবং সলমন—প্রত্যেকেই মুসলিম। অসহিষ্ণুতা কোথায়’? বলিউড অভিনেতা তথা বিজেপি সাংসদ পরেশ রাওয়ালের টুইট-প্রতিক্রিয়া, ‘আমিরের পিকে হিন্দু ধর্মবিশ্বাসকে কটাক্ষ করলেও তাঁকে হিন্দুদের রোষে পড়তে হয়নি। বরং ছবিটি কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করেছে’।
আমির অবশ্য পাশে পেয়েছেন ‘পিকে’র পরিচালক রাজকুমার হিরানিকে। আজ এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, ‘‘ভারতে এখন রং থেকে পশু— সবকিছুই ভাগ হয়ে গিয়েছে! সবুজ-গেরুয়া, গরু-ছাগল— সবকিছুতেই সাম্প্রদায়িক তকমা লাগছে।’’ আর ঋষি-পুত্র রণবীরের মন্তব্য, ‘‘আমির প্রকৃতই দেশের জন্য ভাবেন, কাজ করেন। তবে যে অসিহষ্ণুতার কথা বলা হচ্ছে, ততটা অসহিষ্ণু ভারত নয়।’’

ঐক্য ও সম্প্রীতির কথা মোদীর মুখে
অসহিষ্ণুতা বিতর্ক নিয়ে সরাসরি মুখ খুললেন না। তবে সিঙ্গাপুরে প্রবাসী এবং অনাবাসী ভারতীয়দের একটি অনুষ্ঠানে ভারতের ‘ঐক্য ও সম্প্রীতি’র ঐতিহ্যের কথা আজ স্মরণ করালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রধানমন্ত্রী জানান, তাঁর সরকারের লক্ষ্য ভারতীয়দের আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে তোলা যাতে ভারতীয় ঐক্য ও সম্প্রীতির মন্ত্র মনে রেখে তাঁরা এগিয়ে যেতে পারেন। অসহিষ্ণুতা বিতর্কে মোদীর ‘স্বচ্ছ ভারতে’র দূত আমির খান সরব হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনীতির কারবারিদের একাংশ। দিনকয়েক আগে ব্রিটেনে গিয়েও মোদী অসহিষ্ণুতা বিতর্কে মুখ খুলতে বাধ্য হয়েছিলেন।

Copyright © 2018 Ebela.in - All rights reserved