রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনে যে সব আসনে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়নি, সেই সব আসনের ফলাফল স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। মঙ্গলবার সেই মামলার শুনানিতেই অস্বস্তিতে পড়ল রাজ্য নির্বাচন কমিশন।

প্রধান বিচারপতির এজলাসে পঞ্চায়েত মামলা উঠতেই বিচারপতিরা রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে জানতে চায়, ঠিক কতগুলি আসনে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়নি। সেই হিসেব চাইতেই অথৈ জলে পড়েন নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী। সঠিক তথ্য হাতের কাছে ছিল না তাঁর।

এর পরে, বিচারপতিরা আদালতে উপস্থিত রাজ্য নির্বাচন কমিশনের সচিবের সঙ্গে আইনজীবীকে কথা বলার নির্দেশ দেন। কিন্তু সচিবের সঙ্গে কথা বলেও সঠিক তথ্য আদালতের সামনে উপস্থিত করতে পারেননি কমিশনের আইনজীবী।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

এতেই ক্ষুব্ধ আদালত তীব্র তিরস্কার করেন কমিশনের অফিসারকে। প্রধান বিচারপতি বলেন, কিছু না জানা থাকলে জনগণের টাকা খরচ করে কেন কমিশনের অফিসার আদালতে উপস্থিত হয়েছেন।

সিপিএম ও বিজেপি পঞ্চায়েত নির্বাচনের মনোনয়ন প্রক্রিয়া চলাকালীন সন্ত্রাসের অভিযোগ নিয়ে শীর্ষ আদালতের কাছে গিয়েছিল। তাঁদের অভিযোগ ছিল যেখানে শাসক দল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতে গেছে, সেখানে শাসক তৃণমূলের সন্ত্রাসের কারণেই বিরোধীরা মনোনয়ন দাখিল করতে পারেনি।

তাদের হিসেব অনুযায়ী প্রায় ৩৪ শতাংশ আসনেই কোনও লড়াই হয়নি। এই আসনগুলির ফলাফলই স্থগিত রেখেছিল শীর্ষ আদালত।

মঙ্গলবার রাজ্য নির্বাচন কমিশনের আইনজীবী এই মামলার শুনানি এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়ার আর্জি জানান। কিন্তু প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন, বুধবারই কমিশনকে সব তথ্য নিয়ে হাজির হতে হবে। বুধবারই পরবর্তী শুনানি হবে।