ভারত বাড়তি সুবিধা পাবে। আর্থিক লাভ হবে ভারতের। এমন যুক্তি দেখিয়েই প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে সরে আসার কথা ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর দাবি, ভারত আর চিন অযথা ফায়দা লুটছে।

এরই জবাব দিলেন সুষমা স্বরাজ। প্যারিস জলবায়ু চুক্ত অনুসারে আমেরিকাকে দিতে হবে ৩০০ কোটি ডলার। এনিয়েই ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘‘এই চুক্তিতে কোটি কোটি ডলার সাহায্য পাচ্ছে ওরা। এ বার দ্বিগুণ কয়লা উৎপাদনের ছাড়পত্র পাবে ভারত। কয়লা-ভিত্তিক নতুন নতুন কারখানা খুলে ফায়দা লুটবে চিনও। অথচ আমেরিকা কিছুই করতে পারবে না।’’ এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়ে দেন, প্যারিস চুক্তি থাকুক আর না থাকুক জলবায়ু রক্ষার আন্দোলন থেকে সরে আসবে না ভারত। এবার আরও কড়া ভাষায় জবাব দিলেন বিদেশমন্ত্রী।

সোমবার সুষমা স্বরাজ বলেন, ‘ভারত প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে সই করেছে দায়িত্ববোধ থেকে আর্থিক লাভ বা অন্য কোনও চাপে নয়।’ এখানেই না থেমে স্বরাজের মন্তব্য, ‘‘ট্রাম্প যা বলছেন সেটা সত্য নয়। অন্য কোনও কারণে নয় ভারত ওই চুক্তিতে সই করেছে শুধুমাত্র পরিবেশ রক্ষার তাগিদে।’’

আরও পড়ুন

প্রবাসী ভারতীয়কে সাহায্য করতে গিয়ে নিজেই বোকা বনে গেলেন সুষমা

বউয়ের চাকরির বদলি চেয়ে সুষমাকে টুইট। সঙ্গে সঙ্গে পেলেন ভয়ংকর উত্তর

এর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সুরে সুর মিলিয়ে বিদেশমন্ত্রী বলেছেন, ‘ভারতের পাঁচ হাজার বছরের পরম্পরা হল প্রকৃতিকে রক্ষা করা ও পূজা করা। কেউ যদি এমন দাবি করেন যে আমরা আর্থিক লভাবে জন্য চুক্তিতে সই করেছি তবে সেটা ভুল। আমরা দায়িত্ববোধ থেকেই ওই চুক্তিতে সই করেছি। আমেরিকা তাতে রইল কি রইল না তাতে ভারতের কিছু এসে যায় না। ভারত থাকবে।’’

মোদী সরকারের তিন বছর পূর্তি নিয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বিদেশমন্ত্রী আরও বলেন, ওবামা জমানার মতো ট্রাম্পের আমেরিকার সঙ্গেও সমান সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক নিয়ে চলতে চায় ভারত। ট্রাম্পের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মোদীর তিনবার বৈঠক হয়েছে। স্বরাজ এই কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘‘পারস্পরিক সুবিধার কথা মাথায় রেখেই আমরা সম্পর্ক স্থাপন করতে চাই।’’