ছোট্টবেলা থেকে প্রফেসর শঙ্কুর অন্ধ ভক্ত। শঙ্কু সিরিজ শেষ করার পাশাপাশি বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত কল্পবিজ্ঞানের গল্প এক নিঃশ্বাসে শেষ করত সে। পড়াশুনোর বাইরে গোগ্রাসে গিলত সেই সব বই। গল্প পড়েই ইচ্ছে হয়েছিল আমেরিকার নাসা মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে ভবিষ্যতে গবেষণা করার। রায়গঞ্জ সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের সেই নবম শ্রেণির ছাত্র স্বপ্রভ দে এবার যাচ্ছে নাসায়।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

সিলভার জোন ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিয়াডস অব ম্যাথেমেটিক্স আয়োজিত জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান দখল করে নাসা মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে শিক্ষামূলক ভ্রমণের সুযোগ পাচ্ছে স্বপ্রভ। রায়গঞ্জের মতো প্রত্যন্ত এক শহর থেকে জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করার খুশির হাওয়া জেলার শিক্ষা মহলে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও স্বপ্রভকে সংবর্ধনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নিজের বিদ্যালয়ে স্বপ্রভ। — নিজস্ব চিত্র

স্বপ্রভ’র বাবা সঞ্জীব দে জানিয়েছেন, ‘‘অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময়ে ম্যাথামেটিক্স অলিম্পিয়াডের রাজ্যস্তরে স্বপ্রভ প্রথম অংশগ্রহণ করে। রাজ্য ও পরবর্তীকালে সারা দেশে প্রথম স্থান দখল করে সে। চলতি বছরের ৭ মে দিল্লিতে ইসলামিক কালচারাল সেন্টারে সিলভার জোন ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিয়াডস অফ ম্যাথমেটিক্স-এ উদ্যোগে জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সারা দেশের ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণির কয়েকশো স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় রাজ্যের প্রতিনিধি স্বপ্রভ।’’

১৮ মে এই প্রতিযোগিতার ফল প্রকাশের পরে জানা যায়, স্বপ্রভ সারা দেশে প্রথম স্থান দখল করেছে। এর জন্য আর্থিক পুরস্কারের পাশাপাশি সংস্থার পক্ষ থেকে তাকে অগস্ট মাসে এক সপ্তাহের জন্য আমেরিকার নাসা মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এমন সুযোগ পাওয়ায় কার্যত আত্মহারা বছর পনেরোর ছাত্র। সামনেই ফাইনাল পরীক্ষা। আপাতত সেই পরীক্ষার প্রস্তুতিতে ব্যস্ত স্বপ্রভ।

রায়গঞ্জ সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র স্বপ্রভ দে জানিয়েছে, “ম্যাথ অলিম্পিয়াডে প্রথম স্থান দখল করে খুব ভালো লাগছে। কিন্তু নাসা মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রে ঘুরতে যেতে পারব জেনে সব থেকে খুশি হয়েছি।’’

রায়গঞ্জ সেন্ট জেভিয়ার্স স্কুলের প্রিন্সিপাল ডেভিড রাজ জানিয়েছেন, “স্বপ্রভ’র সাফল্যে স্কুলের সর্বস্তরের ছাত্রছাত্রী থেকে শুরু করে সমস্ত শিক্ষক গর্বিত।’’ জেলাশাসক আয়েষা রানি জানিয়েছেন, “স্বপ্রভ জাতীয় স্তরে রায়গঞ্জের মুখ উজ্জ্বল করেছে। ওর সাফল্যে আমরা গর্বিত। ওকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’’