মোদী সরকারের বিরুদ্ধে চার বাম দল ও কংগ্রেসের ডাকা বন‌্ধের ইস্যুকে সমর্থন করলেও, বন‌্ধকে সমর্থন করবে না তৃণমূল কংগ্রেস। তারা রাস্তায় নেমে সেদিন প্রতিবাদ জানাবে। তবে রাজ্য সচল রাখার আবেদন জানাল শাসক দল।

তেলের ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধি, কৃষকদের সমস্যা, কর্মহীনতার বিরুদ্ধেই ১০ সেপ্টেম্বর ভারত জুড়ে আলাদা করে বন‌্ধ ডেকেছে কংগ্রেস। তাতে সমর্থন রয়েছে অন্যান্য বিরোধী দলের। এদিকে সিপিএম, সিপিআই, সিপিআই(এমএল)-লিবারেশন ও আরএসপিও আলাদা করে একই দিনে একই ইস্য়ুতে বন‌্ধ ডেকেচে।

তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেন, ‘‘আমরা বন‌্ধের ইস্যুগুলির সমর্থক। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের উন্নয়ন বন্ধ করে কর্মনাশা বন‌্ধের বিরুদ্ধে। তাই সাধারণ মানুষের কাছে আমরা জনজীবন স্বাভাবিক রাখার আবেদন জানাচ্ছি।’’

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

বন‌্ধের দিন মোদী সরকারের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে কলকাতা শহরে কেন্দ্রীয় ভাবে মিছিল করবে তৃণমূল কংগ্রেস। বেলা ৩টের সময় মৌলালিতে জমায়েত করে প্রতিবাদ মিছিল যাবে ধর্মতলার ডোরিনা ক্রসিং পর্যন্ত। 

জেলাগুলিতেও তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ মিছিল বা সভা করার জন্য নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

তবে বন‌্ধের ইস্যুগুলিতে নৈতিক সমর্থন জানালেও, সেদিন সরকারি অফিসে উপস্থিতি নিয়ে কড়াকড়ি করা হবে কিনা তা নিয়ে নবান্নের কোনও অবস্থান এখনও জানা যায়নি।

তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বন‌্ধের বিরোধিতা করে এসেছে বরাবরই। অন্য দলগুলির বন‌্ধের দিন সরকারি কর্মীরা অনুপস্থিত থাকলে তাদের বেতন কেটে নেওয়ার নির্দেশিকাও জারি করেছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার।

কিন্তু এ বার মোদী-বিরোধী বন‌্ধের ইস্যুতে নৈতিক সমর্থন জানিয়ে সেই রকমের নির্দেশিকা সরকার জারি করবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়।  

Copyright © 2018 Ebela.in - All rights reserved