রাজ কুমার হিরানি পরিচালিত ‘সঞ্জু’ দেখে মনে মনে নিজের প্রিয় তারকার জীবনী সিনেমার পর্দায় দেখার ইচ্ছে পোষন করেছেন অনেকেই। কলকাতার একটি বেসরকারি বেতার সংস্থা আয়োজিত একটি স্পেশাল স্ক্রিনিং-এ উপস্থিত ছিলেন টলিউডের বেশ কিছু তারকা। ছবিটি দেখে তারা সকলেই উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করলেন, তবে তাদের কাছে যখন জানতে চাওয়া হল তারা কোন নায়ক বা নায়িকার জীবনী দেখতে চান বড় পর্দায়,  চমকপ্রদ উত্তর আসতে থাকল।

প্রথেমই শ্রীলেখা মিত্রর উত্তর বেশ তাক লাগাল, তাঁর মতে ‘‘সত্যি কথা বলতে পারবে এমন কাউকে টলিউডে পাওয়া মুশকিল। তবে বলিউডের দিকে তাকালে অবশ্যই চাইব মিঠুন দা (চক্রবর্তী)র বায়োপিক দেখতে চাইব। মিঠুন চক্রবর্তীর জীবন এত কালারফুল, পরিচালকের হাতে দর্শকদের দেখানোর মতো অনেক মশলা থাকবে। 

এর পরই কথা হল অভিনেতা ওম এর সঙ্গে, তার মতে ‘‘বুম্বাদার জীবনের মতো রোলারকোস্টার খুব কম আছে আর এমন একজন মানুষ যে বলতে পারে আমি ইন্ডাস্ট্রি, এই জায়গাটা কীভাবে করলেন সেটা অবশ্যাই ঘটনাবহুল হবে, যা আমাদের মত নতুন অভিনেতা ও দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’’

পরিচালক অরিন্দম শীল সবে ফিরেছেন মুসৌরি থেকে। তার মতে ‘‘বলিউডের রেখা ছাড়া আর কার কথা বলব! ইভেন্টফুল লাইফ। আর বাংলা ছবির ক্ষেত্রে অবশ্যই দেখতে চাইবো ছবি বিশ্বাসের জীবনী।’’ 

অভিনেতা সাহেব ভট্টাচার্য্য অবশ্য বলেছেন ‘‘দেখতে চান অনেককেই কিন্তু পরিচালনা কে করবেন, এটাই বড় প্রশ্ন। তবে আমি সুচিত্রা সেন এর জীবনী দেখতে চাই, কি কারণে তিনি নিজেকে সবার থেকে লুকিয়ে রাখলেন, কী করেই বা তাঁর সময়ে এতো মহারথীদের মাঝে নিজের উজ্জ্বল উপস্থিতি তৈরী করলেন দেখতে চাইব।’’

সব শেষে বলতে হয় অভিনত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তীর কথা, তাঁর মতে ‘‘পরিচালক রাজ চক্রবর্তীকে আমি অনেকদিন ধরে চিনি। ওকে আমরা অনেকেই দেখেছি অ্যাকাডেমি অফ ফাইন আর্টসের সামনে টিকিট বিক্রি করতে, সেখান থেকে আজেকর রাজ, অবশ্যই তার জীবনী অনেক ঘটনাবহুল এবং ছবি করার জন্য যে রসদ দরকার সবটাই পাবে, তাই এর জীবনী নিয়ে সিনমা হলে ভালো হয়। আর বলিউড হলে অবশ্যই চাইবো রেখা জীবনী নিয়ে সিনেমা দেখতে।’’


আগামী দিনে অবশ্যই হয়তো বলিউড বা টলিউড ভাববে আরও সেলেব বায়োপিক বানানোর কথা। কারণ তারকাদের জীবনী আকর্ষনীয়। আজ  সোশাল মিডিয়ার দৌলতে কাছের মনে হলেও আদপে তারা সকলেই দূরের তারা।