তিনটে আলাদা গল্প। তিনটে আলাদা যাপন। তিন বন্দুকের নিজস্ব চরিত্র। এই তিন গল্পের তিন পরিণতি নিয়েই পরিচালক সঞ্জীব দে তৈরি করে ফেলেছেন তার ডেবিউ ছবি ‘‘থ্রি স্মোকিং ব্যারেলস’’। 


উত্তর-পূর্ব ভারতের বর্তমান আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটকেই এই ছবির মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন পরিচালক। এক দিকে সন্ত্রাসবাদের কঠিন থাবা, অন্য দিকে চোরাশিকারের জ্বলন্ত সমস্যা। এই দুই চেনা ছবির পাশপাশি মাথা চাড়া দিয়ে বেড়ে ওঠা আরও এক বুলেটের নাম ড্রাগ। নেশায় আচ্ছন্ন তরুণ প্রজন্ম ও তাঁদের পরিণতির একেবারে তিতকুটে বাস্তবিক গল্পকে বাস্তবের মাটিতে পা রেখেই বুনেছেন সঞ্জীব।

সময়ও কম যায়নি। দীর্ঘদিন ধরে চলেছে এই বহুভাষিক ছবির শ্যুটিং। 

ছবিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, সাইনি গগৈ, মন্দাকিনী গোস্বামী, সিদ্ধার্থ বোরো, সুব্রত দত্ত এবং অমৃতা চট্টোপাধ্যায়। তিন গল্পের ছয় চরিত্রই বড় বেশি জীবন্ত, রক্ত মাংসের, জানালেন পরিচালক। 

ইন্দ্রনীল এবং সাইনির গল্পে যেমন বাসা বেঁধেছ শৈশব এবং সন্ত্রাসের জীবাণু, তেমনই নতুন প্রজন্ম জুড়ে মারণনেশার হাতছানি রয়েছে মন্দাকিনী এবং সিদ্ধার্থের গল্পে। প্রতিদিনের এক একটা লড়াই আর সম্পর্কের তিক্ততা নিয়ে বেঁচে থাকে প্রান্তিক দম্পতি, যেখানে উঁকি মারে বেআইনি জীবিকা। চোরাশিকারের জালে জড়িয়ে যায় সুব্রত ও অমৃতার গল্প। 

টানটান গল্পের সঙ্গে তাল ঠুকেছে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক এবং ছবির গান। সেখানেও যথেষ্ট পরীক্ষামূলক ভাবনা চিন্তার ছাপ রেখেছেন পরিচালক। ছবির গান গেয়েছেন পাপন এবং কার্তিকদাস বাউল।

ইতিমধ্যেই জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরে একাধিক পুরস্কার এসেছে এই ছবির ঝুলিতে। স্বাভাবিকভাবেই পরিচালক এবং কলাকুশলীদের প্রত্যাশার পারদও তাই বাড়ছে "থ্রি স্মোকিং ব্যারেলস"-কে কেন্দ্র করে। আগামী ২১শে সেপ্টেম্বর মুক্তি পাচ্ছে অমিত মালপানি প্রযোজিত এই ছবি।