‘‘হাই, আই অ্যাম মোমো’’

অন্য দিক থেকে উত্তর এল ‘‘হ্যালো মোমো, আমি বিরিয়ানি।’’

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

যত দিন বাড়ছে, ততই মোমো গেম নিয়ে আতঙ্ক বাড়ছে রাজ্য জুড়ে। তবে শুধু আতঙ্কই নয়, মোমোকে নিয়ে ঠাট্টা-মশরায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। মোমোকে নিয়েই তৈরি করা হচ্ছে অনেক রকম মিম। বানানো হচ্ছে জোকস। যা নিয়ে রীতিমতো হাসির খোরাক চলছে ফেসবুক থেকে হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার সর্বত্র।

 

মোমোকে নিয়ে ট্রোল । ছবি ফেসবুক গ্রাহকের প্রোফাইল থেকে।

মোমো আতঙ্ক আর খোরাকের মধ্যেই ফেসবুক জুড়ে ভাইরাল হচ্ছে মোমোর চ্যাটের বিভিন্ন স্ক্রিনশট। কোথাও মোমোকেই উলটে ভয় দেখানো হচ্ছে। কোথাও বা মোমোর সঙ্গে চ্যাটে মোমোকেই নিয়ে ঠাট্টা-মশকরা করা হচ্ছে। ফেসবুকের বিভিন্ন ট্রোল পেজ থেকে যা শেয়ার করা হচ্ছে। রইল এমন কিছু স্ক্রিনশট।

ফেসবুকে ভাইরাল স্ক্রিনশট। ছবি ফেসবুক গ্রাহকের প্রোফাইল থেকে।

এই সব দেখে অনেকের মধ্যেই প্রশ্ন উঠছে, মোমো তাঁকে কেন মেসেজ করেছ না! ফেসবুকে ট্রোলের বাড়বাড়ন্ত দেখে তাঁরাও চাইছেন মোমোকে নিয়ে মজা করতে।

মোমোকে নিয়ে ট্রোল । ছবি ফেসবুক থেকে।

তবে মোমো তাঁদের প্রশ্নের উত্তর দেয় কি না, সেটা সময়েই বলবে। আপাতত সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মোমো গেমের লিংক মেসেজে এলেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে। হোয়াটসঅ্যাপের চ্যাটবক্সে এই মারণ গেমের লুকোচুরির মধ্যে, বাঙালিরা মজেছেন মোমোকে নিয়ে ট্রোল করতে।