খিদের চোটে, অন্ধকার নামতেই জঙ্গল ছেড়ে বেরিয়েছিল দম্পতি। গ্রামে ঢুকেই চোখে পড়ে মাঠ ভরা সবুজ খাবার। আনন্দে ভরে উঠেছিল হস্ত-দম্পতির মন। কিন্তু কে জানত সেখানেই ওত পেতে আছে মৃত্যু দূত!

চাষের জমির আলে টাঙিয়ে রাখা উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুতের তার গলায় জড়িয়ে তড়িদাহত হয়ে মৃত্যু হল পূর্ণবয়স্ক হস্তি-হস্তিনীর। বাঁকুড়ার সোনামুখী রেঞ্জের নারায়ণসুন্দরী গ্রামের পাশে আলু জমিতে সকাল হতেই দেখা যায় পাশাপাশি পরে রয়েছে দু’টি বিশাল নিথর দেহ।

এই সংক্রান্ত আরও খবর

প্রাণ নিচ্ছে বহিরাগত দামালরা, হাতি আতঙ্কে জঙ্গলমহল

হাতির মৃত্যু বাঁকুড়ায়, চলল পুজা অর্চনা, দেখুন ভিডিও

যহাঁ সোচ, ওহাঁ শৌচালয়। যহাঁ সোচ নহিঁ, ওহাঁ গণেশবাবা...

চার ঘণ্টার চেষ্টায় কুয়ো থেকে উদ্ধার হস্তীশাবক, দেখুন ভিডিও

আলিপুরদুয়ারের জঙ্গলে মিলল আহত হাতি, দেখুন ভিডিও
 

বাঁকুড়ায় হাতি মৃত্যুর তালিকা ক্রমশ দীর্ঘ হচ্ছে। গত এক সপ্তাহে বাঁকুড়া জেলায় পৃথক তিনটি জায়গায়, মোট ৪টি হাতির মৃত্যু হয়েছে। ২১ জানুয়ারি সোনামুখী রেঞ্জের অনন্তবাটি গ্রামে একটি হাতির মৃত্যু হয়। এর পরে ২৬ জানুয়ারি বেলিয়াতোড় রেঞ্জের নবাসন গ্রামে মৃত্যু হয় আরও একটি হাতির। তার সঙ্গে যুক্ত হল মঙ্গলবার রাতে নারায়ণ-সুন্দরী গ্রামে এই দু’টি হাতির মৃত্যু।

বাঁকুড়া জেলায় একের পর এক হাতি মৃত্যুতে উদ্বিগ্ন বন দফতর। হাতি উপদ্রুত এলাকাগুলিতে নিজেদের জমির ফসল বাঁচাতে জমির আলে বেআইনি ভাবে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুতের বেড়া দিচ্ছে এলাকার চাষিরা। তারই পরিনাম এই মৃত্যু। সোনামুখী রেঞ্জের বিট অফিসার সনাতন মুর্মু বলেন, ‘‘এলাকায় বারবার বলা সত্বেও কৃষকরা ফসল বাঁচাতে ওই বেআইনি পথেই হাঁটছেন। এর ফলে বেঘোরে প্রাণ হারাচ্ছে হাতিগুলি।’’

দেখুন ভিডিও—