কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতিন গড়করী জানিয়ে দিলেন সারা দেশে কেন্দ্রীয় সরকার পাঁচটি ইথানল তৈরির কারখানা তৈরি করছে। ইথানল তৈরি হবে খড়, বাঁশ, মিউনিসিপ্যালিটির বর্জ্য ইত্যাদি দিয়ে। বিকল্প জ্বালানির ব্যবস্থা হয়ে গেলেই পেট্রল ও ডিজেলের উপর নির্ভরতা কমে যাবে। তখনই প্রতি লিটার পেট্রলের দাম ৫৫ টাকা ও প্রতি লিটার ডিজেলের দাম ৫০ টাকা হয়ে যাবে।

পেট্রোপণ্যের দাম দিয়ে যখন বিরোধীরা বন্‌ধ ডেকেছে, প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছে, তখনই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর এমন বিবৃতি সাড়া ফেলে দিয়েছে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

‘‘আমাদের পেট্রলিয়াম মন্ত্রক পাঁচটি ইথানল তৈরির কারখানা তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে,’’ সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন নীতিন গড়করী। 

ছত্তিশগড়ে একটি সভায় নীতিন বলেন, নাগপুরে প্রায় এক হাজার ট্র্যাক্টর জৈব জ্বালানিতে চলছে। এখন জৈব জ্বালানি নিয়ে অনুসন্ধান চালানো উচিত। তিনি এটাও বলেন যে, এখন পেট্রলের সঙ্গে ইথানল মিশিয়ে সফলভাবে গাড়ি চালানো হচ্ছে। এই প্রক্রিয়াকে আরও উৎসাহ দেওয়া হবে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বক্তব্য, ‘‘আমরা ৮ লাখ কোটি টাকার পেট্রল ও ডিজেল আমদানি করছি। দামও বাড়ছে। ডলারের প্রেক্ষিতে টাকার দাম কমছে। আমি গত ১৫ বছর ধরে বলছি কৃষক, আদিবাসী ও বনবাসীরা ইথানল, মিথানল, জৈব-জ্বালানি তৈরি করতে পারে।’’

সরকার ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে অটো রিক্সা, বাস, ট্যাক্সি— যেগুলি বিকল্প জ্বালানিতে চালানো হচ্ছে তাদের পারমিট দেওয়ার ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হবে।    

Copyright © 2018 Ebela.in - All rights reserved