লন্ডনের ওয়েস্টমিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের সামনে দাঁড়িয়ে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন পলাতক শিল্পপতি বিজয় মাল্য। তাঁর দাবি ব্যাঙ্কের ঋণের টাকা না মিটিয়ে ভারত থেকে পালানোর আগে তিনি অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির সঙ্গে দেখা করে বোঝাপড়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

বিজয় মাল্য এই মুহূর্তে ৯০০০ কোটি টাকার জালিয়াতি ও নয়ছয়ের অভিযোগে অভিযুক্ত। ব্যাঙ্কের দেনার টাকা না মিটিয়েই তিনি দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন।

‘‘আমি ভারত ছেড়েছিলাম কারণ, আমার জেনিভায় একটি বৈঠক ছিল। তার আগে আমি অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলাম। আমি ব্যাঙ্কের দেনা মেটানোর একটি প্রস্তাবও দিয়েছিলাম। এটা সত্যি।’’ লন্ডনে সাংবাদিকদের একথা বলেন মাল্য।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

তিনি কর্ণাটক হাইকোর্টেও একটি দেনা মেটানোর ফর্মুলা দিয়েছিলেন বলে দাবি করেছেন কিংফিশারের প্রাক্তন মালিক।

২০১৬ সালে যখন মাল্য ভারত ছেড়ে পালান, তখন অর্থমন্ত্রী ছিলেন অরুণ জেটলি। মাল্যর এই বিস্ফোরক দাবি শুনে জেটলি একটি বিবৃতি জারি করে এই বৈঠকের কথা অস্বীকার করেছেন। তবে মাল্য যে একটি মৌখিক প্রস্তাব দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন তা জানিয়েছেন জেটলি। 

নিজের ফেসবুক পেজে অর্থমন্ত্রী লিখেছেন, ‘‘২০১৪ সাল থেকে আমি ওঁকে কোনও অ্যাপন্টমেয়ন্টই দিইনি। ওঁর সঙ্গে দেখা করার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। যদিও উনি রাজ্যসভার সাংসদ ছিলেন ও সেই ক্ষমতার অপব্যবহার করেছিলেন। আমি একবার সংসদে আমার অফিসে যখন যাচ্ছিলাম, তখন তিনি পিছন থেকে জোরে হেঁটে আমার কাছে আসেন ও বলেন, আমি একটি মিটমাটের প্রস্তাব দিচ্ছি। আমি ওঁকে থামিয়ে দিয়ে বলেছিলাম, ‘‘আমার সঙ্গে কথা বলে লাভ নেই। আপনি ব্যাঙ্কগুলির সঙ্গে সরাসরি কথা বলুন।’’

তবে এই নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তুমুল চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।