ফোটোগ্রাফার জিয়া আলির তোলা ইসলামাবাদের এক অনামী সুপুরুষ চায়ওয়ালার ছবি প্রায় দিন কুড়ি আগে ভাইরাল হয় ইন্টারনেটে। ছবিটি নিয়ে টুইটারে ভারতীয় এবং পাকিস্তানি নাগরিকদের মধ্যে মজার মন্তব্য বিনিময়ে আরও বিখ্যাত হয়ে ওঠেন এই চায়ওয়ালা। পাকিস্তানবাসী সোহেল চিমা লেখেন, ভারতীয় মেয়েদের উপর সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর জন্য পাকিস্তানের চায়ওয়ালারই রয়েছেন। এর পরেই তৎপর হয় পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম। শেষ পর্যন্ত জানা যায় এই হ্যান্ডসাম চায়ওয়ালার নাম ‘আরশাদ খান’। 

রাতারাতি জীবন পাল্টে যায় চায়ওয়ালার। ইতিমধ্যেই তিনি শ্যুট করে ফেলেছেন তাঁর প্রথম মডেলিং অ্যাসাইনমেন্ট। সম্প্রতি পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যমে সম্প্রচারিত হয়েছে তাঁর সাক্ষাৎকার আর সেখানেই তিনি এমন কিছু বললেন তা শুনে তাক লেগে যেতে হয়। আরশাদ পড়াশোনা করেননি এবং তাঁর বাড়ি আফগানিস্তান-সীমান্ত লাগোয়া অঞ্চলে। অর্থাৎ আরশাদ জাতিতে পাঠান এবং তাঁর সেই গ্রাম্য পাঠানসুলভ ভাবনাচিন্তাই ধরা পড়ল টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে। তাঁর ধ্যানধারণার কথা শুনে বেশ অপ্রস্তুত হলেন উপস্থাপিকাও। 

আরও পড়ুন

রাতারাতি জীবন পাল্টে গেল এই পাকিস্তানি চায়ওয়ালার! কীভাবে?

এই চায়ওয়ালাই এখন ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের নতুন পারমাণবিক অস্ত্র

ঠিক কী প্রশ্ন করা হল আরশাদকে আর কী উত্তর দিলেন? নীচের লিংকে রইল সেই সাক্ষাৎকার—