বন্‌ধের দিন গোলমালে গাড়ি ভাঙচুর হলে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মিলবে ক্ষতিপূরণ। তার পরিমাণ হতে পারে ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। ক্ষতির পর্যালোচনা করেই এই টাকা দেবে সরকার। তবে তার জন্য গাড়ি আক্রান্ত হওয়ার ১২ ঘণ্টার মধ্যে থানায় এফআইআর দায়ের করতে হবে।

এই মর্মেই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রাজ্যের পরিবহণ দফতর। মোদী সরকারের নীতির বিরুদ্ধে সারা ভারত জুড়ে বন্‌ধ ডেকেছে কংগ্রেস, চার বামদল-সহ অন্যান্য বিরোধী দলগুলি। বন্‌ধকে সমর্থন না করলেও, তৃণমূল কংগ্রেস সিদ্ধান্ত নিয়েছে সোমবার তারা প্রতিবাদ মিছিল করবে রাজ্যে। 

বন্‌ধকে সমর্থন না করে ইস্যুগুলিকে সমর্থন করছে তৃণমূল। কিন্তু রাজ্য সরকার আগের বন্‌ধের মতোই বিজ্ঞপ্তি জারি করে কর্মীদের জানিয়ে দিয়েছে সোমবার কোনও ভাবেই ছুটি বা হাফ-ছুটি নেওয়া যাবে না। ছুটি নিলেই বা অফিসে অনুপস্থিত থাকলে কাটা যাবে বেতন। ছেদ পরবে সার্ভিস রেকর্ডে।

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

‘‘কর্মনাশা দিন পালনের ডাক অন্যরা যা দিয়েছেন তার বদলে আমরা রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ জানাব। রাজ্যে সব অফিস, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় খোলা থাকবে,’’ বলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

অন্য দিকে বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় মোদী সরকারের বিরুদ্ধে এই বন্‌‌ধকে কটাক্ষ করেন। তিনি বলেন, ‘‘কংগ্রেস ও বামেরা বন্‌ধ ডেকেছে। যারা রাজ্যকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে গেছে তারাই বন্‌ধের রাজনীতি করছে। আর তৃণমূল ধরি মাছ না ছুঁই পানির মতো ব্যবহার করছে। এটা তো রাজা-রানি-বাদশার ব্যাপার মনে হচ্ছে।’’

পেট্রোপণ্যের দাম বৃদ্ধি, মূল্যবৃদ্ধি ও কৃষক সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হওয়ায় নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সোমবার, ১০ সেপ্টেম্বর বন‌্ধ ডেকেছে কংগ্রেস ও বামদলগুলি।