এমনটা যে হবে, তা স্বপ্নেও ভাবেননি শার্লট হ্যারিসন। সম্প্রতি অনলাইন সংস্থা ‘ই-বে’ থেকে একটি ডিম কিনে শার্লটকে উপহার দেন তাঁর বাবা। ডিমটির দাম নিয়েছিল ২৫ পাউন্ড। 

ডিমটি ছিল আসলে একটু অন্যরকম। প্রথমে শার্লট বুঝতে পারছিলেন না ডিমটিকে নিয়ে কী করবেন তিনি। এরপরে সেই ডিমটিকে নিজের বাড়িতেই নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় রেখে দিয়েছিলেন শার্লট। এর ঠিক ৪৭ দিন পরে ঘটে সেই অদ্ভুত ঘটনা। ডিম ফুটে বের হয়ে আসে এমু পাখির বাচ্চা।

ডিম ফুটে বের হচ্ছে ‘কেভিন’

বাচ্চা এমু পাখিটিকে সযত্নে লালন পালন করতে থাকেন শার্লট। আদর করে তিনি পাখিটির নাম দেন কেভিন। ধীরে ধীরে বাড়ির বাকি সদস্যদের সঙ্গেও বেশ ভালভাবে মিশে যায় কেভিন। কিন্তু বাধ সাধে অন্য জায়গায়। ১ মাস পরে কেভিনকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি ভিডিও পোস্ট করেন শার্লট। ব্যাস। সেই ভিডিওটি দেখেই শার্লটের বাড়িতে নোটিস পাঠায় রয়্যাল সোসাইটি ফর দ্য প্রিভেনশন অব ক্রুয়েলটি টু অ্যানিম্যালস। পাখিটিকে তাদের অফিসারদের হাতে তুলে দিতে বলা হয়।

শার্লটের সঙ্গে ছোট্ট ‘কেভিন’

এখন সেই এমুটি একটি স্পেশালিস্ট ফার্মে রয়েছে। কিন্তু কেন এমনটা করলেন আরএসপিসিএ-এর আধিকারিকরা? তাঁদের তরফে জানানো হয়েছে, কেভিন এখন ছোট। কিন্তু একদিন সে বড় হবে। এই ছোট্ট পাখিটি এক সময় ৬ ফুট লম্বা হয়ে যাবে। তখন শার্লটের তিন বেডরুমের বাড়ি কেভিনের জন্য যথেষ্ট হবে না।

এমুর নিবাস অস্ট্রেলিয়া। উটপাখির পরে পাখির সংসারে এরাই দ্বিতীয় বৃহত্তম। প্রায় ২০ বছর পর্যন্ত বাঁচে এরা। তবে বড় হয়ে গেলে এরা হিংস্র হয়ে ওঠে। সেই কারণেই এমুটিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

সরকারী নির্দেশকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে এখনও ওড়ানো হয় নীলকণ্ঠ পাখি

চিকেন টিক্কা মশালার পাত্রে জ্যান্ত সিগাল! বলেন কী