SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali

কুক-টুক: লক্ষ্মীপুজোর স্পেশাল রান্না

অক্টোবর ১৪, ২০১৬
Share it on
মা লক্ষ্মীর পুজোয় ভোজ হয় নিরামিষ কিন্ত তা বলে কি তা কম স্পেশাল নাকি! এইদিন ভোগের খিচু়ড়ি না খেলে কি আর মন ভরে? রইল তিনটি রেসিপি।

আগামীকাল লক্ষ্মীপুজো। তাই সেই উপলক্ষে আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করছি লক্ষ্মীপুজোর ভোজ। এইদিন সবাই নিরামিষ খান ও অনেক লোকজন নিমন্ত্রণ করেন। এই পদগুলো এই লক্ষ্মীপুজোতে রান্না করে সকলকে আনন্দ দিতে পারেন। 

ভুনি খিচুড়ি সবজি দিয়ে

উপকরণ: 

গোবিন্দভোগ চাল— ২০০ গ্রাম 
ভাজা মুগের ডাল— ২৫০ গ্রাম 
টম্যোটো কুচি— ১/২ কাপ 
আদাবাটা— ২ টেবিলচামচ 
ঘি— ৫০ গ্রাম
সাদা তেল— ৬ টেবিলচামচ
চেরা কাঁচালঙ্কা— ৬-৭টি 
সাদা জিরে— ১ চা-চামচ
তেজপাতা— ২টি
শুকনো লঙ্কা— ২টি 
হলুদগুঁড়ো— ১ চা-চামচ
লঙ্কাগুঁড়ো— ১/২ চা-চামচ 
জল— ৭০০ মিলিলিটার 
বড় টুকরো করা আলু— ৪টি
ফুলকপি বড় করে কাটা— ৮ টুকরো
মটরশুটি— ১ কাপ 
নুন— স্বাদমতো
চিনি— ৩ চা-চামচ
নারকেল কুচি— ১/২ কাপ
 

প্রণালী: আলু ও কপি নুন মাখিয়ে সোনালি করে ভেজে তুলুন। একটা কড়াইতে তেল ও ঘি মিশিয়ে গরম করুন। চাল ও ভাজা মুগ ডাল ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখুন। এইবার তেল গরম হলে তাতে জিরে, তেজপাতা ও শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিন। ফোড়ন হলে তাতে ভিজিয়ে রাখা চাল ও নারকেল কুচি দিয়ে ভাল করে ভাজুন। চাল-ডাল ভাজতে ভাজতেই তার সঙ্গে মেশাতে থাকুন আদাবাটা, হলুদগুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো ও টম্যাটো কুচি। নুন ও চিনিও দিয়ে দিন। চাল-ডাল-মশলা যখন বেশ কষানো হয়ে যাবে তখন জল দিয়ে ঢাকা দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। জল ফুটে উঠলে তাতে আলু, ফুলকপি, মটরশুটি ও কাঁচালঙ্কা দিয়ে আবার ঢাকা দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না করুন। মাঝেমধ্যে নেড়ে দেবেন যেন তলায় না লেগে যায়। জল শুকিয়ে এলে গ্যাস বন্ধ করে দিন ও কড়াইতে ঢাকা দিয়ে একটা ভারী কিছু চাপা দিয়ে ২০ মিনিট ভাপে রাখুন। কুড়ি মিনিট পর ঢাকা খুলে পুরো জিনিসটা নাড়িয়ে নিন। ব্যস্, তৈরি হয়ে গেল ভুনি খিচুড়ি। 

লাবড়া

উপকরণ: (এই রান্নায় সব সবজ ডুমো ডুমো করে কাটতে হবে)

আলু— ২টো 
পটল— ৬টি 
কুমড়ো— ১০০ গ্রাম 
বেগুন— ১টি (মাঝারি)
বরবটি— ১০০ গ্রাম
ঝিঙে— ৩টি
ফুলকপি— ১টি 
বড়ি— ১০-১২টি
নারকেল কোরা— ১ কাপ 
পাঁচফোড়ন— ১ চা-চামচ 
হলুদগুঁড়ো— ১ চা-চামচ
লঙ্কাগুঁড়ো— ১ চা-চামচ 
আদাবাটা— ২ টেবিলচামচ 
জিরে গুঁড়ো— ২ চা-চামচ 
ঘি— ৪ টেবিলচামচ 
নুন— স্বাদমতো 
চিনি— ২ চা-চামচ
কাঁচালঙ্কা— ৬টি 
তেজপাতা— ২টি 
গরমমশলা গুঁড়ো— ১/২ চা-চামচ 
সর্ষের তেল— ১০০ গ্রাম 
হিং— ১/২ চা-চামচ 
শুকনো লঙ্কা— ২টি 

প্রণালী: সব সবজি কেটে আলাদা আলাদা করে ধুয়ে নিন। কড়াইতে তেল গরম করুন। তেল গরম হলে তাতে বড়ি, বেগুন ও ফুলকপি ভেজে তুলে রাখুন। কুমড়োও আলাদা করে ভেজে তুলে রাখুন। এইবার বাকি তেলে পাঁচফোড়ন, তেজপাতা, হিং, শুকনো লঙ্কা ও তেজপাতা ফোড়ন দিন। ফোড়ন হয়ে গেলে তেলের মধ্যে আলু, বরবটি, ঝিঙে ও পটল দিয়ে ভাজতে থাকুন। সবজি ভাজা হলে তাতে নুন, চিনি, নারকেল কোরা, হলুদগুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, আদাবাটা ও জিরে গুঁড়ো দিয়ে ভাল করে কষতে থাকুন। সবজি ও মশলা কষা হলে পরিমাণ মতো জল দিয়ে ঢাকা দিন। যখন দেখবেন, জল প্রায় মরে এসেছে ও সবজিও প্রায় সেদ্ধ হয়ে গিয়েছে, তখন ভেজে রাখা বড়ি, বেগুন, ফুলকপি ও কুমড়ো দিয়ে আবার ঢাকা দিয়ে রান্না করুন। যখন দেখবেন জল শুকিয়ে গিয়েছে ও সবজি সেদ্ধ হয়ে গিয়েছে তখন ঘি, গরমমশলা ও চেরা কাঁচালঙ্কা দিন ও বেশ ভাজা ভাজা করুন। যখন সবজি থেকে তেল ছাড়বে তখন বুঝবেন লাবড়া তৈরি। গ্যাস বন্ধ করে সার্ভিং ডিশ-এ ঢেলে দিন। ভুনি খিচুড়ির সঙ্গে দারুণ লাগবে। 

আরও পড়ুন

কুক-টুক: পুজো স্পেশাল রান্না, মিষ্টিমুখ পর্ব

স্পেশাল বেগুনি

উপকরণ: 

বেগুন— ১০ পিস (পাতলা পাতলা গোল করে কাটা)
নুন— স্বাদমতো 
চিনি— ১/২ চা-চামচ 
কালো জিরে— ১/২ চা-চামচ 
জোয়ান— ১/২ চা-চামচ 
পোস্ত— ১ টেবিলচামচ 
লঙ্কাগুঁড়ো—  ১/২ চা-চামচ
বেকিং পাউডার— ১/২ চা-চামচ
বেসন— ৬ টেবিলচামচ  
ময়দা— ১/২ কাপ 
সাদা তেল— ভাজবার জন্য 

প্রণালী: বেগুন ধুয়ে নুন ও চিনি মাখিয়ে রাখুন। তেল বাদে বাকি সব উপকরণ দিয়ে একটা ব্যাটার তৈরি করুন। ব্যাটারে ১ চা-চামচ সাদা তেল দেবেন ও বরফ-ঠান্ডা জলে বেসন ও ময়দার গোলাটি তৈরি করবেন। এইবার একটি প্যানে তেল গরম করুন। তেল গরম হলে একটা করে নুন-চিনি মাখানো বেগুন গোলায় চুবিয়ে ছাঁকা তেলে সোনালি করে ভেজে তুলুন। পরিবেশন করুন গরমাগরম ভুনি খিচুড়ি ও লাবড়ার সঙ্গে। কথা দিচ্ছি, দারুণ জমে যাবে লক্ষ্মীপুজোর এই নিরামিষ ভোজ। 

Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -