SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali

ফিটমন্ত্র: রোগা চেহারা ভাল করতে চান? অনুসরণ করুন এই ডায়েট...

সেপ্টেম্বর ১, ২০১৬
Share it on
পাঠক-পাঠিকা বন্ধুরা, যাঁরা এই সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে দাঁড়ানোর সময় আর সুযোগ এসে গিয়েছে।

এবারের অধ্যায়ের লেখা আমি উৎসর্গ করছি তাঁদের জন্য, যাঁরা আন্ডারওয়েট। উচ্চতা এবং বয়স অনুযায়ী যদি দেহের ওজন প্রয়োজনের তুলনায় কম হয়, তবে তা থেকে ফিটনেসের সমস্যা তো হয়ই, পাশাপাশি অনেকের মধ্যে নানা ধরনের কমপ্লেক্সও তৈরি হয়। অনেক ক্ষেত্রে কনফিডেন্স লেভেল একেবারে তলানিতে এসে ঠেকে। এবার তাদের, বিশেষ করে আমার টিনএজ পাঠক-পাঠিকা বন্ধুরা যারা এই সমস্যায় ভুগছে, তাদের ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে দাঁড়ানোর সময় আর সুযোগ এসে গিয়েছে। 


 পুজোর বাজনা এখনও বেজে ওঠেনি, কিন্তু চারিদিকে তারই প্রস্তুতি। চলুন আমরা প্রত্যেকে ফিট, গ্ল্যামারাস আর কনফিডেন্ট হয়ে উপভোগ করি এবারের পুজো— গুরুপ্রসাদ বন্দোপাধ্যায়

আমার একটাই অনুরোধ, যখন আমার লেখা পড়বেন তখন আমার মানসিকতার সঙ্গে আপনার মনটাকেও একসুরে  বাঁধার চেষ্টা করুন... আমি হলফ করে বলতে পারি আপনি এই চেষ্টায় সফল হলে মোটিভেশনে টগবগ করে ফুটবেন। আর পিছনে ফিরে তাকানোর কিংবা ‘নেগেটিভ’ চিন্তা বা ‘না’ বলার অবকাশ থাকবে না। আমি আগেই বলেছি, আকর্ষণীয় চেহারা = ৭০ শতাংশ ডায়েট + ৩০ শতাংশ এক্সারসাইজ। প্রথমেই বলি, লাইফস্টাইল পালটাতে হবে, ডিসিপ্লিনড হতে হবে। রোগাদের ক্ষেত্রে অনেক বার খেতে হবে। আরও সকালে উঠতে হবে। রাতে তাড়াতাড়ি শুয়ে পড়ার চেষ্টা করতে হবে, যাতে ঘুমের সময়টা আর একটু বাড়ানো যায়। কারণ দেহ-মনের ক্ষয়পূরণ করতে গেলে ভাল ঘুমের দরকার। 


ডিসিপ্লিনড লাইফস্টাইল মেনে, ঠিকঠাক ডায়েট অনুসরণ করে আর বিজ্ঞানসম্মতভাবে ব্যায়াম করলে প্রত্যেকেই নিজেকে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারেন। 

ডায়েট

১. সকাল ৬টায় খালি পেটে এক থেকে দু’গ্লাস ঈষদুষ্ণ জল পান। 

২. সকাল ৬.৩০টায় ভেজানো কাঁচা চিনেবাদাম, অঙ্কুরিত ছোলা আর কাঁচা সয়াবিনের দানা সব মিলিয়ে একমুঠো আখের গুড় কিংবা দুই চা-চামচ মধু দিয়ে খেতে হবে। ছাতুর শরবত কিংবা ড্রাই ফ্রুটসও চলতে পারে। 

৩. স্কুল, কলেজ কিংবা অফিস যাওয়ার সময়ে ভাত, আলুসেদ্ধ, ডাল-মাছ ইত্যাদি খেতে হবে। 

৪. স্কুলে টিফিনে ন্যুডলস, পরোটা, লুচি বা হাতে গড়া রুটি, আলুর দম অথবা সবজি দিয়ে খেতে হবে। তার সঙ্গে যে কোনও একটা ফল আর শুকনো মিষ্টি... যেমন চমচম, লাড্ডু অথবা বরফি খেতে হবে। 

৫. বিকেলে ফিরে এসে দুধ বা দই দিয়ে চিঁড়ে মেখে, তাতে কলা চটকে খাওয়া যেতে পারে অথবা সবজি দিয়ে তৈরি ডালিয়ার খিচুড়ির সঙ্গে দু’টি ডিম সেদ্ধ খাওয়া যায়। এগুলোর পরিবর্তে ন্যুডলসও চলতে পারে, আবার কর্নফ্লেক্স-কলা বা চিঁড়ের উপমাও খেতে পারেন। 

৬. সন্ধেবেলা এক গ্লাস দুধ, সঙ্গে বিস্কুট, কেক অথবা চকোলেট। 

৭. ডিনারে ভাত কিংবা রুটি। খাওয়ার শেষে পায়েস, পুডিং কিংবা মিষ্টি দই থাকলে ভাল হয়। সঙ্গে পছন্দমতো মিষ্টিও খেতে পারেন।  

৮. এছাড়া বার্লির শরবত দিনে দু’বার খাওয়া খুব উপকারী। এই ধরনের শরবত শরীর ঠান্ডা রাখে এবং এনার্জি বাড়ায়। লেবু-চিনি দিয়ে এই শরবত তৈরি করা যেতে পারে অথবা গ্লুকোজও মেশানো যায়। চাইলে দুধ অথবা ফ্রুট জুস মিশিয়েও খাওয়া যায়। বার্লির স্বাদ যদি ভাল না লাগে, তবে এইভাবে ছাতুর শরবত বানিয়েও খাওয়া যেতে পারে। 

৯. যাদের স্কুল-কলেজ খুব সকালে, তারা অবশ্যই ওটস/ কর্নফ্লেক্স/ ডালিয়া খেয়ে যাবে। স্লাইসড ব্রেডের সঙ্গে ডিম-কলাও চলতে পারে। তবে ছুটির দিনে কিন্তু ব্রেকফাস্টে ভাত খেলে ভাল হয়। লাঞ্চেও ভাত খেতে হবে তার সঙ্গে। 

১০. স্কুল পড়ুয়াদের টিউশন থাকলে ব্যাগে অবশ্যই রাখতে হবে জল, কাপ কেক, চকোলেট, লাড্ডু অথবা বরফি-জাতীয় মিষ্টি। এছাড়া বিস্কুট এবং ড্রাই ফ্রুটসও সঙ্গে সব সময়ে মজুত রাখতে হবে। পেট খালি রাখা চলবে না কোনওমতেই।  

১১. অফিসযাত্রীরা সকালে ভাত খেয়ে বেরোবেন আর চেষ্টা করবেন টিফিনে যদি ভাত নিয়ে যেতে পারেন। না পারলে ক্যান্টিনে ভাত, আলুসেদ্ধ, ডাল, প্লেন সবজি (ঝাল-মশলা কম) খেতে পারেন। ভাত না পেলে রুটি-সবজি কিংবা প্লেন ধোসা খাবেন, সঙ্গে ফল-মিষ্টি চলতেই পারে। 

১২. বিকেলে অফিসপাড়ায় যদি অল্প তেলে চাউমিন পাওয়া যায় তবে ঠিক আছে, নয়তো স্টিমড মোমো, ইডলি ইত্যাদি খাওয়া যেতে পারে। 

১৩. জাঙ্কফুড কোনওভাবেই খাওয়া চলবে না। সারাদিনে প্রচুর জল খেতে হবে খালিপেটে আর খুব ঘাম হলে এক গ্লাস জলে নুন ও চিনি মিশিয়ে বার বার খাবেন। 

এ তো গেল খাওয়া-দাওয়ার কথা। এছাড়া খাওয়াদাওয়ার পাশাপাশি চেহারা ভাল করতে আরও কিছু জিনিস নিয়ম করে করতে হবে। যেমন, স্নানের আগে প্রত্যেকদিন অল্প তেল নিয়ে নিজে নিজেই হালকা মালিশ করবেন, যাতে তেলটা সারা গায়ে বসে যায়। এইভাবে মাসাজ করলে গায়ের নোংরা পুরোপুরি উঠে যায়, মাসল স্টিফনেস দূর হয় আর ত্বকের চাকচিক্য বাড়ে। এবারের অধ্যায়ে ডায়েট নিয়ে আলোচনা করলাম। পরের অধ্যায়ে চেহারা ভাল করার জন্য ২০ মিনিটের কিছু ব্যায়ামের কথা বলব, যেগুলি সহজেই বাড়িতে অভ্যাস করা যাবে। পুজোর মধ্যেই অর্জুনের লক্ষ্যভেদ করা চাই। 

 

 

আরও পড়ুন

ফিটমন্ত্র: অনুসরণ করুন এই ফাইভ-ডে ম্যাজিক ডায়েট

ফিটমন্ত্র: ফিট থাকতে প্রতিদিন ২০ মিনিট করুন এই ব্যায়ামগুলি

Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -