SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali

ফিটমন্ত্র: গৃহবধূদের ফিটনেস ও সৌন্দর্য ধরে রাখার বিভিন্ন উপায়, পর্ব ১

ডিসেম্বর ৫, ২০১৬
Share it on
সংসার সামলে নিজেদের ফিটনেস ও সৌন্দর্য ধরে রাখা অসম্ভব মোটেই নয়। এর জন্য প্রয়োজন বিশেষ ডায়েট, হালকা এক্সারসাইজ ও কঠিন প্রতিজ্ঞা— ইয়েস, আই ক্যান ডু ইট।

আমি মনে করি, জীবনে সফল হতে গেলে সুস্থ শরীর আর সতেজ মনের বিশেষ প্রয়োজন। আসলে সফল হতে গেলে বয়সটা কোনও ফ্যাক্টরই নয়। সুতরাং আমি বলতেই পারি, যে কোনও ব্যক্তি জীবনের যে কোনও সময়েই পুরনো জীবনের বিসর্জন দিয়ে সবকিছু আবার নতুন করে শুরু করে সফলতার শিখরে উঠতে পারেন। কেবল দরকার, কাজ করার জন্য ফিট শরীর আর জীবনযুদ্ধে জয়ী হওয়ার জন্য সতেজ ও শক্ত মন। 

গুরুপ্রসাদ বন্দ্যোপাধ্যায়

কথায় আছে, সারভাইভাল অফ দ্য ফিটেস্ট, যে কথাটা এখন সবার কাছেই প্রযোজ্য। এখন পেশার তাগিদে বয়স্কদের বাইরে কাজে বেরতে হয়। বয়স্ক মহিলাদের ক্ষেত্রেও সংসারের কাজে পুরোমাত্রায় জড়িয়ে পড়তে হয়। কারণ, ছোট সংসারে বয়স্ক স্বামী-স্ত্রী একাই থাকেন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে। হয়তো ছেলেমেয়েরা বিদেশে কাজে ব্যস্ত। তা ছাড়া আজকাল ঠিকমতো সব সময় কাজে সাহায্য করার মতো লোকজনেরও অভাব, সবার ব্যস্ততার কারণে। 

সুতরাং, আমি বলতেই পারি এই মুহূর্তে বাঁচার তাগিদের জন্য ফিট থাকা একান্ত প্রয়োজন, সে যে বয়সেরই হোন না কেন! এবার আমি আমার শ্রদ্ধেয় পাঠক-পাঠিকাদের সামনে এমন একজন হাউসওয়াইফকে তুলে ধরব যিনি ফিট থাকার তাগিদ সঠিকভাবে উপলব্ধি করতে পেরেছেন। চার-চারটে মেজর পেটের অপারেশনের ধকল (এর মধ্যে বড় গাইনোকোলজিক্যাল অপারেশনও আছে) সহ্য করে নিয়মিত ব্যায়াম, ডায়েট আর ডিসিপ্লিনড লাইফ লিড করে স্ট্যামিনা, ফিটনেস আর গ্ল্যামারের উচ্চশিখরে পৌঁছে গিয়েছেন। নিজেকে এমনভাবে তৈরি করেছেন যে সদ্যযুবতীদেরও ঈর্ষার বস্তু অনায়াসে হতে পারেন। বিভিন্ন রোগের বেড়াজাল টপকে শ্রীমতী মহুয়া গঙ্গোপাধ্যায় সংসারের সব কাজ নিজের হাতে করে জীবনটাকে তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছেন। 

মহুয়া গঙ্গোপাধ্যায়... হাউসওয়াইফদের আইকন বললেও কোনও ভুল হবে না

কথায় আছে, হোয়্যার দেয়ার ইজ উইল, দেয়ার ইজ আ ওয়ে। চলুন তবে আর কালবিলম্ব না করে কাজে নেমে পড়ি। আমি সব সময় বলি— চেহারা = ৭০% ডায়েট + ৩০% এক্সারসাইজ। আজ ডায়েট নিয়ে আলোচনা করব। কারণ মেদবহুল চেহারা একটা বয়সের পরে বিপদ ডেকে আনতে পারে। একজন মধ্যবয়স্ক মহিলার টিনএজারদের মতো নির্মেদ শরীর নাও হতে পারে। কিন্তু অতিরিক্ত ফ্যাট কমিয়ে ফিট থাকা যেতেই পারে। আমি সব সময় প্র্যাকটিকাল দিক চিন্তা করেই গাইডলাইনস ঠিক করি যাতে সবার কাছে তা গ্রহণযোগ্য হয়! 

হাউসওয়াইফদের মেদ কমানোর ডায়েট 

১. ঘুম থেকে উঠে একগ্লাস ঈষদুষ্ণ জলে পরিমাণমতো যতটুকু সহ্য হয়, ততটুকু লেবুর রস মিশিয়ে খেতে হবে। 

২. সকাল আটটা নাগাদ গ্রিন টি বা লিকার টি অথবা চিনি ছাড়া দুধ চা। সঙ্গে একটা সুগার-ফ্রি বিস্কুট। 

৩. সকাল দশটায় ছোট একবাটি নোনতা ওটস অথবা ডালিয়া অথবা কর্নফ্লেক্স। তার সঙ্গে আপেল কিংবা পেঁপে চলতে পারে। 

৪. দুপুর একটায় লাঞ্চের এক ঘণ্টা আগে একটা বড় শশা খেতে হবে। তাহলে লাঞ্চের সময় খিদের উদ্রেক থাকবে না এবং ভাত খেতে ইচ্ছেই করবে না। বডিওয়েট কমানোর এটাই সফলতম কায়দা। 

৫. দুপুর দুটোয় লাঞ্চ। ৪০ গ্রাম চালের ভাত, শাক কিংবা সবজি, বিভিন্ন সবজি মিশিয়ে ডাল, এক বা দু’পিস মাছ ও সম্ভব হলে টক দই। মাঝবয়সি মহিলাদের ক্যালসিয়ামের জন্য দুধ-জাতীয় খাবারের বিশেষ প্রয়োজন। 

৬. বিকেল পাঁচটায় এক কাপ চিনিছাড়া চা আর একটা সুগার-ফ্রি বিস্কুট। 

৭. সন্ধে সাতটায় ছানা কিংবা স্প্রাউটস অথবা অল্প সুজির উপমা কিংবা তেলছাড়া শুকনো খোলায় ভাজা চিঁড়ে। স্বাদের জন্য সামান্য চানাচুর মেশাতে পারেন। সঙ্গে এক কাপ স্কিমড মিল্ক খাওয়া যেতে পারে। 

৮. রাত ন’টায় ডিনার। দুটো রুটি, সবজি, ডাল, দু’পিস চিকেন কিংবা মাছ। তার সঙ্গে স্যালাড কিংবা রায়তা। 

একদিন লাঞ্চে ভাতের বদলে ফ্রুটস্যালাড (আপেল, পেয়ারা, পাকা পেঁপে, ন্যাসপাতি, কমলা কিংবা মুসাম্বি) টক দই দিয়ে খাবেন। তার সঙ্গে একটা কিংবা দুটো এগ হোয়াইট। আবার একদিন ডিনারে ২ পিস চিকেনের সঙ্গে প্রচুর সবজি দিয়ে একটা বড় বোল-এ স্যুপ মতো বানিয়ে খাবেন। তার সঙ্গে স্যালাড কিংবা রায়তা। যদি সকালে লাঞ্চে ফ্রুট স্যালাড খান তাহলে ডিনারে রুটি, সবজি ইত্যাদি খাবেন। যদি লাঞ্চে ৪০ গ্রাম চালের ভাত খান তাহলে ডিনারে চিকেন স্যুপ অথবা ভেজিটেবিল স্যুপ কিংবা মাছের স্যুপ ইত্যাদি খাবেন। 

আন্তরিকভাবে আপনাদের শুভকামনা জানিয়ে আমার লেখা শেষ করলাম। পরের সোমবার আবার অনেক কিছু নিয়ে ফিরে আসব। নমস্কার। 

আরও পড়ুন

ফিটমন্ত্র: স্কুল-কলেজ ও অফিসযাত্রীদের জন্য শীতের ফিটনেস ডায়েট

ফিটমন্ত্র: ফিট থাকতে প্রতিদিন ২০ মিনিট করুন এই ব্যায়ামগুলি 

Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -