SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali

কলকাতায় বসেই কম খরচে দার্জিলিঙের খাওয়া! রইল নতুন ফুড-জয়েন্টের হদিশ

জুন ১২, ২০১৮
Share it on
পাড়ায় পাড়ায় মোমো-র দোকান রয়েছে ঠিকই, কিন্তু খাঁটি তিব্বতী বা নেপালি খাবার খেতে গেলে যেতে হবে একটি বিশেষ জায়গায়।

যদি কেউ টিবেটান ও অথেন্টিক নেপালি খাবার খেতে ভালবাসেন, তবে আপনাদের একটাই ঠিকানা— দক্ষিণ কলকাতার খুব হ্যাপেনিং ফুড জয়েন্ট ‘মামামোমো’। এই ফুড জয়েন্ট আপনাদের মনে করিয়ে দেবে আমাদের অতি প্রিয় জায়গা, দার্জিলিঙের কথা। আর এটাই বোধ হয় ‘মামামোমো’-র ইউএসপি। 

এই বিষয়ে অন্যান্য খবর

তাশি ধেনধুপ কিদওয়াই যে সব রেসিপি দিয়ে আমাদের গ্যাস্ট্রোনমিক্যাল আকর্ষণ বাড়িয়েছেন এই জায়গার প্রতি, তার পিছনে রয়েছেন তাঁর মা পেমবা ডোমা কিদওয়াই। তাঁর দৈনিক তত্ত্বাবধানে কলকাতাবাসী স্বাদগ্রহণ করতে পারছেন দার্জিলিঙের খাওয়া-দাওয়ার খাস কলকাতায় বসে। মেনুতে রয়েছে অনেক কিছুই, কিন্তু আপনাদের জানাব কিছু বিশেষ আইটেমের কথা। 

ছবি সৌজন্য: ফার্স্ট আইডিয়া

মোমো তো রয়েছেই নানা ধরনের, যেমন পর্ক, ভেজ ও চিকেন (স্টিমড ও প্যান ফ্রায়েড)। এছাড়া এখানকার বিশেষত্ব হল চিলি মোমো। এটি একটি অসাধারণ ডিশ। অনেকটা চিলি চিকেনের মতো কিন্তু মোমো দিয়ে তৈরি। দেখতে বেশ স্পাইসি ও কালারফুল। এছাড়া খুব ভাল থুকপা পাওয়া যায় এখানে নানা রকমের। থুকপার সঙ্গে চাইলে বিভিন্ন ধরনের রাইস ও নুডলসও পাবেন। 

‘মামামোমো’-র চিলি মোমো

তবে একটি বিশেষ ডিশের কথা উল্লেখ করতেই হবে, যেটা এখানকার স্পেশালিটি— মাংসের শিকুয়া এবং সঙ্গে গোলভেদা আচার। সহজ কথায় বলতে গেলে এটা একটা অসাধারণ নেপালি কাবাব, যেটা শিকে গেঁথে আগুনে ঝলসে নিতে হয়। রেসিপি আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করলাম যাতে আপনারা বাড়িতেও বানিয়ে নিতে পারেন। 

মাংসের শিকুয়া

উপকরণ: 

বোনলেস মাটন— ৫০০ গ্রাম (টুকরো করে কাটা)
ঘি— ২ টেবিল-চামচ 
নুন— স্বাদমতো 
লেবুর রস— ১ টেবিল-চামচ
হলুদগুঁড়ো— ১/২ চা-চামচ
গরম মশলা গুঁড়ো— ১ চা-চামচ
আদা কুচি— ১ চা-চামচ
রসুন কুচি— ২ চা-চামচ 
কাঁচালঙ্কা কুচি— ২ চা-চামচ 
টক দই— ১/২ কাপ 

প্রণালী: মাংসের টুকরোগুলোকে সব উপকরণ দিয়ে সারা রাত ম্যারিনেট করে রাখুন। ম্যারিনেশন কিন্তু ১২ ঘণ্টা করতেই হবে। এইবার বার-বি-কিউ গ্রিল গরম করুন। স্কিউয়ার্স-এ মাংসের টুকরোগুলো গেঁথে দিন ও ১০-১২ মিনিট গ্রিল করুন। মাঝে মাঝে শিকুয়ার গায়ে ঘি মাখিয়ে দিন। লক্ষ্য রাখবেন যেন চারিধার ভাল ভাবে শেঁকা হয়। বেশ বাদামি রং ধরলে গরম গরম সার্ভ করুন টম্যাটোর আচার দিয়ে। যাঁদের বার-বি-কিউ নেই তাঁরা গ্যাসে অথবা ছোট উনুনে মাঝারি আঁচে শেঁকে নিতে পারেন। অথবা আভেনে ১৮০ ডিগ্রিতে রোস্ট করে নিন। 

এই মাংসের শিকুয়া খেতে হয় গোলভেদা আচার দিয়ে। আমরা অনেক সময়ে পাহাড় থেকে নেপালি আচার কিনি। এখন আপনি সব পেয়ে যাবেন ‘মামামোমো’-তে। ‘ডাল্লে চিলি’ বলে এক বিশেষ ধরনের লঙ্কা পাওয়া যায় সিকিম ও দার্জিলিংয়ে। এই লঙ্কা দিয়ে তৈরি এক সুস্বাদু চিলি সস পাবেন এইখানে। এছাড়া পেয়ে যাবেন নানা ধরনের নেপালি আচার ও মশলা। তবে গোলভেদা আচার আপনি চাইলে বাড়িতেও তৈরি করে নিতে পারেন। নীচে রইল রেসিপি— 

গোলভেদা আচার (স্পাইসি টম্যাটো চাটনি)

উপকরণ: 

টম্যাটো— ৪টি
রসুন— ৬ কোয়া 
আদা কুচি— ১ চা-চামচ
গোটা জিরে— ১ চা-চামচ
গোটা ধনে— ১/২ চা-চামচ 
শুকনো লঙ্কা— ২টি 
ধনেপাতা— ১ আঁটি 
নুন— স্বাদমতো 

প্রণালী: সব উপকরণ ভাল করে শিলে পিষে নিলেই গোলভেদা আচার রেডি। 

তবে আর দেরি কেন? চলে আসুন ‘মামামোমো’-তে এবং বেছে নিন আপনার পছন্দের আইটেম ওদের মেনু কার্ড থেকে। ঠিকানা, ২৩/৩ কাঁকুলিয়া রোড, গোলপার্ক, কলকাতা- ২৯ (মৌচাকের পাশের রাস্তায়)। ২ জনের ভালমতো খেতে পড়বে ৩০০ টাকা। সময় সকাল ১২টা থেকে রাত ১০টা। তবে আবার মনে করিয়ে দিলাম, মাংসের শিকুয়া খেতে ভুলবেন না কিন্তু। 

Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -