SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

২০১৭-র শুরুতেই বড় ধামাকা! জিও-র সঙ্গে মিশে যেতে পারে ভোডাফোন? দাবি রিপোর্টে

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | জানুয়ারি ১০, ২০১৭
Share it on
ভারতীয় টেলিযোগাযোগে এক বিশাল অঙ্কের বিনিয়োগ করেছে রিলায়েন্স। এই বিনিয়োগের সঙ্গে পাল্লা দেওয়া যে চাট্টিখানি কথা নয়, তা-ও নাকি বুঝতে পারছে জিও-র প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থাগুলি।

এয়ারটেল লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। টিডিস্যাট-এ জিও-র ফ্রি অফারের বিরুদ্ধে মামলাও করেছে তারা। কিন্তু, নতুন করে আর জিও-র বিরুদ্ধে মামলা করেনি ভোডাফোন। অথচ, একটা সময়ে এয়ারটেলের সঙ্গে সঙ্গে ভোডাফোনও জিও-র বিরুদ্ধে গলা ফাটিয়ে ট্রাই-এর দ্বারস্থ হয়েছিল। 

জিও-র বিরুদ্ধে আচমকা ভোডাফোনের এমন চুপচাপ হয়ে যাওয়ার কারণ কী? বেশকিছুদিন ধরেই এই নিয়ে নানা জল্পনা ছড়াচ্ছিল। অবশেষে, ব্রিটেনের ‘দ্য টেলিগ্রাফ’-এ প্রকাশিত এক রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, জিও-র সঙ্গে মিশে যেতে পারে ভোডাফোন। টেলিযোগাযোগ শিল্পে ভোডাফোন বরাবরই বাজার দখলে রাখতে বিভিন্ন দেশে এই নীতি প্রয়োগ করেছে। ভারতের বাজারেও ঢুকতে হাচিনসন টেলিকম-এর ‘হাচ’-এর ব্যবসা এক সময়ে কিনে নিয়েছিল ভোডাফোন। ‘দ্য টেলিগ্রাফ’-এর রিপোর্টে আরও দাবি করা হয়েছে যে, জিও কোনওভাবে বিষয়টিতে রাজি না হলে সেক্ষেত্রে আদিত্য বিড়লার ‘আইডিয়া সেলুলার’-এর সঙ্গে মার্জ করতে পারে ভোডাফোন। কিন্তু, রিলায়েন্স হঠাৎ জিও-কে কেন ভোডাফোনের হাতে তুলে দিতে যাবে? এই প্রশ্নেও ওই রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, বাজারের আসার পর থেকেই নানা ধরনের প্রযুক্তিগত সমস্যায় রয়েছে জিও। এর প্রভাব পড়ছে তাদের পরিষেবায়। ভোডাফোন বিশ্বের অন্যতম সেরা টেলিযোগাযোগ সংস্থা। টেলিকম শিল্পে তাঁদের অভিজ্ঞতা প্রশ্নাতীত। মূলত এই যুক্তি দেখিয়েই নাকি জিও-র সঙ্গে ব্যবসায়িক জোট তৈরির চেষ্টা করছে ভোডাফোনের মূল সংস্থা।  

আরও পড়ুন...  

এয়ারটেলের অশান্তিতে সত্যি সত্যি সলিল সমাধি ঘটছে জিও-র ফ্রি অফারের? 

বিনামূল্যের পরিষেবা শেষ হলে জিও-তে কতটা সস্তা ৪জি ডেটা? 

জিও-র ভবিষ্যৎ অন্ধকার হতে পারে, ইঙ্গিত নতুন সমীক্ষায়

যদিও, এই রিপোর্ট নিয়ে কোনও ধরনের প্রতিক্রিয়া এখনও পর্যন্ত দেয়নি, জিও। আইডিয়া সেলুলারের কাছেও এই প্রতিক্রিয়া চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু, তারাও কোনও উত্তর দেয়নি।   

জিও-র আগ্রাসী নীতিতে ইতিমধ্যেই বেশকিছু ছোটখাটো মোবাইল পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা নিজেদের মধ্যে জোট তৈরি করেছে, যেমন অনিল অম্বানীর রিলায়েন্স টেলিকম-এর সঙ্গে এয়ারসেলের জোট। 

পরিচয় না জানাতে চাওয়া জিও-র এক আধিকারিকের দাবি, মুকেশ অম্বানীর স্বপ্নের প্রকল্প এই রিলায়েন্স জিও। আর জিও-কে অন্য সংস্থার হাতে তুলে দিতে যে প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে, তা খুবই জটিল। 

ভোডাফোন ইন্ডিয়ার মূল সংস্থা ব্রিটেনের ভোডাফোন এই রিপোর্টকে অস্বীকার করেছে এবং সংস্থার পক্ষে এখ উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, কোনও ধরনের জল্পনাভিত্তিক খবরে সংস্থা প্রতিক্রিয়া দেবে না।  

এয়ারটেলের পরে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা হল ভোডাফোন। কিন্তু, বিশাল অঙ্কের ক্ষতির সামনে দাঁড়িয়ে আছে এই সংস্থা। ২০১৬ সালে ভোডোফোন ৪৭,০০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ করেছে ভারতে। কিন্তু, এর অধিকাংশটাই গিয়েছে ২০১৫ সালের ঋণ মেটাতে। এই মুহূর্তে দেশে ভোডাফোনের ২০০ মিলিয়ন গ্রাহক রয়েছে। কিন্তু, এর সত্ত্বেও ভয়েস কলে ২ শতাংশ কমতি আছে সংস্থার। ভোডোফোনের আন্তর্জাতিক ব্যবসাও বিশাল অঙ্কের ক্ষতির সামনে। যার ফলে জিও-র প্রতিরোধেও ভোডাফোন তাদের ফ্রি অফার ঘোষণা করতে অনেকটা দেরি করেছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

Reliance JIO 4G Vodafone Idea Smartphone Mobile Connectivity
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -