SEND FEEDBACK

English
Bengali

যে ৫টি কারণে টিআরপি বাড়ছে ‘কুসুমদোলা’ ধারাবাহিকের

শাঁওলি, এবেলা.ইন | এপ্রিল ১০, ২০১৭
Share it on
বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরেই টিআরপি তালিকায় সেরার জায়গাটা ধরে রেখেছে স্টার জলসা-র ধারাবাহিক ‘কুসুমদোলা’। টিআরপি হু হু করে বেড়ে যাওয়ার কারণ অনেক, কিন্তু এই পাঁচটি অব্যর্থ।

‘পুণ্যিপুকুর’, ‘মিলনতিথি’, ‘কে আপন কে পর’ বা ‘খোকাবাবু’-কে পিছনে ফেলে দিয়েছে ‘কুসুমদোলা’। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই বাংলা টেলিভিশনের টিআরপি তালিকায় সেরার জায়গাটি দখল করে রেখেছে এই ধারাবাহিক। রেটিং ১০ থেকে ৯-এর ঘরেই ঘোরাফেরা করছে। খুব কাছাকাছি অবশ্য রয়েছে ‘কে আপন কে পর’, কিন্তু টেক্কা দিতে পারছে না। দেখেশুনে মনে হচ্ছে, এই ট্রেন্ড আরও কয়েক সপ্তাহ থাকবে তো নিশ্চিত।

আরও পড়ুন

পর্দায় তো শালুক, বাস্তবে সোমরাজের মনের মানুষ অন্য কেউ

জনপ্রিয়তায় কোন পাঁচটি বাংলা চ্যানেল সেরা, রইল সাম্প্রতিক তালিকা 

একেবারে শুরু থেকেই দর্শকদের চোখ ছিল এই ধারাবাহিকের দিকে। কারণ প্রথমত, ‘বোঝেনা সে বোঝেনা’-র পরে মধুমিতা চক্রবর্তীকে দর্শক আবারও পেলেন মুখ্য চরিত্রে। দ্বিতীয়ত, সেই পুরাতন ঋষি-অপরাজিতা জুটি। অর্থাৎ বাংলা টেলিভিশনের এক দশক পুরনো ফেভারিট জুটি আর সাম্প্রতিক সময়ের ফেভারিট নায়িকা— এই জোড়া ট্রাম্পকার্ড নিয়েই শুরু হয়েছে ধারাবাহিক। তবে এর বাইরেও বেশ কিছু কারণ রয়েছে, যা এই ধারাবাহিককে হায়েস্ট টিআরপি-তে পৌঁছতে সাহায্য করেছে—

১. দেওর-বউদি সম্পর্ক বাঙালির অতি প্রাচীন একটি চর্চার বিষয়। দেওর-বউদি-দেওরের বউ এই সমীকরণটা অনেক পরিবারেই ঠিক সরল-সাদাসিধে নয়। বিশেষ করে যদি বউদির সঙ্গে অবিবাহিত দেওরের খুব ভাল একটা বন্ধুত্বের সম্পর্ক থেকে থাকে। দেওরের বিয়ের পরে খুব সূক্ষ্ণ একটা পারিবারিক পলিটিক্স তৈরি হয়ে যায় এই সমীকরণ নিয়ে এবং এটাই ‘কুসুমদোলা’-র প্রধান ইউএসপি।

২. ‘কুসুমদোলা’ শুরু হওয়ার আগে মধুমিতা চক্রবর্তী এবেলা ওয়েবসাইটকে জানিয়েছিলেন যে, বাংলা টেলিভিশনে এই রকম চরিত্র আগে দেখা যায়নি। সাম্প্রতিক অতীতে ‘ইমন’-এর মতো চরিত্র সত্যিই দেখা যায়নি বাংলা টেলিভিশনে। বিবাহিত হওয়া সত্ত্বেও এই চরিত্রের ব্র্যান্ডিংটা কিন্তু একেবারেই ‘বউ’ হিসেবে নয়, একজন ‘নারী’ হিসেবে। আবার তার কথাবার্তা ফেমিনিস্ট মনে হলেও আসলে সে কিন্তু একজন ইকুয়ালিস্ট। তবে ইমনের চরিত্রের মূল ইউএসপি তার ঠোঁটকাটা স্বভাব এবং সাহস। এই কারণেই সে দর্শকের প্রিয়। 

৩. সংলাপের বিশেষ টান এই ধারাবাহিকের প্রধান বিনোদন উপকরণ এবং মজার কথা হল, এটা কিন্তু একেবারেই অবাস্তব কিছু নয়। গ্রামীণ রুট রয়েছে যে সব পরিবারের, তাদের অন্দরমহলে কিন্তু একটি বিশেষ সুরে কথাবার্তা চলে। ধারাবাহিকটি আরও বেশি করে তাই বাস্তবসম্মত মনে হয়।

৪. ‘ইমন’ এই ধারাবাহিকের নায়িকা কিন্ত তাই বলে ‘রূপকথা’ মোটেই খলনায়িকা নয়। রূপকথার চরিত্রে নেগেটিভ শেডস রয়েছে প্রচুর এবং তার সপক্ষে জোরালো যুক্তিও রয়েছে। সেই কারণেই এত ঘন ঘন পারিবারিক কোঁদলের দৃশ্য থাকা সত্ত্বেও ধারাবাহিকে অহেতুক মেলোড্রামা কম। সেটা অবশ্য চিত্রনাট্যকারের মুন্সিয়ানা।

৫. বাংলা টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র জগতের সেরা চরিত্রাভিনেতাদের কাস্টিং কিন্তু হাই-টিআরপির আর একটি কারণ। শঙ্কর চক্রবর্তী, লাবণী সরকার, অনসূয়া মজুমদার, সন্তু মুখোপাধ্যায়, সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়, মাধবী মুখোপাধ্যায়— বাংলার সেরা নক্ষত্ররা একই ফ্লোরে। বলা ভাল, বয়সের দিক থেকে বাংলার অভিনয় জগতের চার জেনারেশন একসঙ্গে।   

ছবি: ‘কুসুমদোলা’-র ফেসবুক পেজ থেকে 

Bengali Serial Bengali Television Kusumdola Madhumita Chakraborty Rrishi Koushik
Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -