SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

রোজ ৩ চামচ খান এই ঘরোয়া মিশ্রণ। মাথায় চুল গজাবে ম্যাজিকের মতো

নিজস্ব প্রতিবেদন, এবেলা.ইন | মার্চ ৮, ২০১৭
Share it on
এই মিশ্রণের ফল ফলতে হপ্তা দু’য়েকের বেশি সময় লাগবে না। তার মধ্যেই টাকে চুল গজাতে শুরু করবে। পাশাপাশি এই মিশ্রণ স্বাস্থ্যের সামগ্রিক উন্নতি ঘটাবে।

অকালে চুল ঝরে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। ব্যয়বহুল কসমেটিক সার্জারির মাধ্যমে টাকে নতুন করে চুল গজানোর বন্দোবস্ত করা যায় ঠিকই, কিন্তু তার হ্যাপা অনেক। তা ছাড়া হেয়ার গ্রাফটিং-এর পেছনে একগাদা টাকা খরচ করার মতো আর্থিক সচ্ছলতাও সকলের থাকে না। ফলে মানুষ খোঁজেন মাথায় চুল গজানোর সহজ ও প্রাকৃতিক কৌশল। ‘ডে বাই ডে থ্রি সিক্সটি ফাইভ’ নামক লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন এ বার তেমনই এক ঘরোয়া কৌশল বাতলে দিয়েছে তাদের সাম্প্রতিক সংস্করণে। একটি বিশেষ ঘরোয়া মিশ্রণের সাহায্যে চুলহীন মাথাকে ম্যাজিকের মতো ঢেকে ফেলা যাবে কালো চুলে— এমনটাই জানানো হয়েছে ওই পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে। 

কী কী লাগবে এই মিশ্রণ তৈরি করতে? লাগবে চারটি সামান্য জিনিস—

১. ২০০ গ্রাম তিসি তেল।
২. ৪টি পাতি লেবু। 
৩. ১ কেজি মধু। 
৪. ৩টি রসুনের কোয়া। 

এ বার জেনে নিন, কী ভাবে তৈরি করবেন এই মিশ্রণ। প্রথমে রসুন আর পাতি লেবু ছোট ছোট টুকরো করে এক সঙ্গে বেটে নিন। ব্লেন্ডারে ফেলে মিশিয়েও নিতে পারেন। তার পর তিসি তেল এবং মধু তার সঙ্গে মিশিয়ে দিন। এ বার সেই মিশ্রণ একটি পাত্রে ভরে ফ্রিজের ভিতর রেখে দিন। ব্যস, আপনার ম্যাজিক মিশ্রণ তৈরি।

এ বার জানা যাক, এই মিশ্রণ সেবনের নিয়ম। দিনে তিন বার খেতে বসার আধ ঘন্টাখানেক আগে ফ্রিজ থেকে বার করে এই মিশ্রণ খান এক চা-চামচ। তার পর পাত্রটিকে আবার ফ্রিজে ভরে রেখে দিন। 

আরও পড়ুন

মেয়েদের চুলই বলে দেয়, তারা কে কেমন। জানাচ্ছে লক্ষণশাস্ত্র

খালি পেটে স্রেফ রসুন আর মধু! জেনে নিন, এই মন্ত্রেই কীভাবে থাকবেন সুস্থ

জানানো হচ্ছে, এই মিশ্রণের ফল ফলতে হপ্তা দু’য়েকের বেশি সময় লাগবে না। তার মধ্যেই টাকে চুল গজাতে শুরু করবে। পাশাপাশি এই মিশ্রণ স্বাস্থ্যের সামগ্রিক উন্নতি ঘটাবে। বাড়বে চোখের দৃষ্টি, এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। কী? বিশ্বাস হচ্ছে না? তা হলে নিজেই একবার ট্রাই করে দেখুন না। লাভ বই ক্ষতি হবে না, এ কথা হলফ করে বলা যায়। 

Hair Bald Health Tips
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -