SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

শহিদের কন্যা গুলমেহরকে নিয়ে এবার মুখ খুলল পাকিস্তান

অয়নজিৎ সেন, এবেলা.ইন | ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৭
Share it on
২০ বছরের এই তরুণীর শান্তিবার্তায় এখন রাজনৈতিক রং লেগে গিয়েছে। আলোচনার কেন্দ্রে এসে গিয়েছেন এই তরুণী। সেলিব্রিটি এবং রাজনীতিবিদরা সরব হয়েছেন গুরমেহরের সপক্ষে অথবা বিপক্ষে।

গুরমেহর কৌর চেয়েছিলেন, ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে শান্তিস্থাপনের সপক্ষে প্রচার করতে। কিন্তু সেই বিষয়ে তাঁর প্রচেষ্টাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে কমেন্টের পর কমেন্ট, পোস্টের পর পোস্টে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া। ২৩ বছরের এই তরুণীর শান্তিবার্তায় এখন রাজনৈতিক রং লেগে গিয়েছে। আলোচনার কেন্দ্রে এসে গিয়েছেন এই তরুণী। সেলিব্রিটি এবং রাজনীতিবিদরা সরব হয়েছেন গুরমেহরের সপক্ষে অথবা বিপক্ষে। 

কিন্তু পাকিস্তান কী বলছে এই বিতর্ক সম্পর্কে? পাকিস্তানের রাজনৈতিক চিন্তক এবং বরিষ্ঠ সাংবাদিকরা কী ভাবছেন গুরমেহর সম্পর্কে? 

পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে শান্তিস্থাপনের উদ্দেশ্যে গত এপ্রিলে  #ProfileForPeace নামের একটি ক্যামপেইন শুরু করেন গুরমেহর। ‘ভারত আর পাকিস্তানের মধ্যে যদি কোনও যুদ্ধ না হতো, তা হলে আমার বাবা আজও আমাদের মধ্যে থাকতেন’, বলেছিলেন তিনি। ভাইরাল হওয়া তাঁর ভিডিওতে ভারত এবং পাকিস্তান সরকারের কাছে আবেদন রেখেছিলেন গুরমেহর— ‘ভান-ভণিতা’ ছেড়ে দুই পক্ষ যেন ‘সমস্যার সমাধানে’ সচেষ্ট হয়। ‘দু’ দেশের নেতৃবৃন্দ সম্পর্কেই আমি প্রশ্ন তুলছি। তৃতীয় বিশ্বের কোনও দেশের উপযোগী নেতৃত্ব নিয়ে প্রথম বিশ্বের রাষ্ট্র হয়ে ওঠার স্বপ্ন দেখার কোনও অর্থ হয় না,’ লিখেছিলেন গুরমেহর।

আরও পড়ুন

শহিদকন্যা গুরমেহর কতটা দেশদ্রোহী? পাকিস্তানের পক্ষ নিচ্ছেন? পুঁচকে মেয়ে আসলে ‘পুঁচকে’ নয়

দিল্লি ছাড়তে বাধ্য হলেন ‘দেশদ্রোহী’ গুরমেহের। জানুন এই ঘটনা নিয়ে ১৩টি তথ্য

এবেলা.ইন-এর সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে করাচি থেকে পাকিস্তানের স্বনামধন্য সাংবাদিক, স্তম্ভকার এবং বর্তমান শাসক দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-এর প্রাক্তন সদস্য আয়াজ আমির গুরমেহরের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ভারত এবং পাকিস্তানের অনেক রাজনৈতিক নেতার চেয়ে বেশি বাস্তববোধ ছিল গুরমেহরের। পাশাপাশি তিনি এ-ও বলেন যে, ‘দুই দেশের পারস্পরিক আস্থা অর্জনের প্রক্রিয়ায় গুরমেহর সংক্রান্ত বিতর্ক আদৌ সাহায্য করবে না। দুই দেশেই বহু শান্তিকামী মানুষ রয়েছেন, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক ভাবে তাঁদের পাশাপাশি এমন মানুষও অনেক রয়েছেন, যাঁরা তাঁদের তথাকথিত অযৌক্তিক পদ্ধতি আঁকড়ে ধরে বসে রয়েছেন।’ 

‘এত রকম দ্বিপাক্ষিক জটিলতায় দুই পক্ষের শান্তিপ্রক্রিয়া আটকে রয়েছে যে, অবস্থার কোনও রকম উন্নতি ঘটা কঠিন,’ বলেন আয়াজ।

পাকিস্তানের আর এক প্রবীণ রাজনৈতিক ব্যাখ্যাতা এবং বিদেশনীতি বিশ্লেষক জাভেদ সিদ্দিকি লাহৌর থেকে বলেন, ‘বিবেক তাঁকে দিয়ে যা বলিয়েছে, গুরমেহর তা-ই বলেছেন। এমতাবস্থায় তাঁর কণ্ঠরোধ করার প্রচেষ্টা একান্তই অনুচিত হবে। নিজের মত ব্যক্ত করার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা তাঁর রয়েছে, এবং তিনি ন্যায্য কথাই বলেছেন। একটি সুস্পষ্ট উদ্দেশ্য নিয়েই শান্তির বার্তা দিতে চেয়েছিলেন গুরমেহর।’

গুরমেহরের সমর্থনে মুখ খুলেছেন অনেকেই, দেখুন ভিডিও

Gurmehar Kaur Ayaz Amir Javed Siddique
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -