SEND FEEDBACK

Cancel
English
Bengali
Cancel
English
Bengali

জ্যোতিষকথা: কেমন জমিতে বাড়ি, তাতেই লুকিয়ে সুখ-ভাগ্য, জানাচ্ছেন বাস্তুবিদ

মে ২৮, ২০১৭
Share it on
বাস্তুশাস্ত্রে নির্দেশিত কিছু বিশেষ আকৃতির জমিকেই শুভদায়ক মানা হয়। বাকি জমি অশুভ প্রভাব ফেলতে পারে জীবনে।

জমি কিনে বাড়িই করুন আর ফ্ল্যাট কিনে তাতে বসবাস, জমির আকৃতির উপরে নির্ভর করে অনেক কিছুই, বাস্তুশাস্ত্রে নির্দেশিত কিছু বিশেষ আকৃতির জমিকেই শুভদায়ক মানা হয়। বাকি জমি অশুভ প্রভাব ফেলতে পারে জীবনে। এই শুভাশুভ প্রভাবকে পরীক্ষিত সত্য বলেই জানেন বাস্তুবিদরা।

বাস্তু মতে কোন আকৃতির জমি কী প্রভাব ফেলতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা রাখা হল—

১. বর্গাকার জমি— লম্বা ও চওড়ায় সমান। এমন প্লটের চারটি কোণই ৯০ ডিগ্রি। এটি সর্বসুলক্ষণ যুক্ত জমি। একেই বলা হয় ‘ভদ্রাসন’। এমন জমিতে বাস করলে ধর্ম-অর্থ-কাম-মোক্ষ চতুর্বর্গ ফল লাভ হয়। জীবনে সুখ ও সমৃদ্ধি স্থায়ী হয়। তবে এমন প্লট খুবই দুর্লভ।

 

২. আয়তাকার জমি— যে সমস্ত জমির লম্বা ও চওড়ার অনুপাত ২:১, তা এই প্রকার। এই প্লটের চারদিকে রাস্তা থাকলে তা ভদ্রাসনের মতোই ফল দেয়।

 

৩. দণ্ডক্ষেত্র— চওড়ার তুলনায় যদি লম্বা অত্যন্ত বেশি হয়, তাকে বলে দণ্ডক্ষেত্র। এমন জমিতে বাস করলে গৃহস্বামীর সর্বনাশ হয়।

৪. বিষমবাহু ক্ষেত্র— এমন প্লট বসবাসের পক্ষে অযোগ্য। মামলা-মোকদ্দমা, স্বাস্থ্যহানি ও দারিদ্র্য অবশ্যম্ভাবী।

৫. ডম্বরু বা পনব ক্ষেত্র— এই জমিতে বাস করলে চোখের সমস্যা, দৃষ্টিশক্তি হ্রাস, স্বাস্থ্যহানি লেগে থাকে। ভৌতিক উপদ্রবও ঘটতে পারে।

৬. ষড়কোণাকৃতি ক্ষেত্র— এই ধরণের প্লট শুভকারী। গৃহের সার্বিক উন্নতি ঘটে এমন জমিতে।

৭. বৃহন্মুখ বা সিংহমুখ ক্ষেত্র— যে প্লটের সামনের দিক চওড়া এবং পিছন দিক অপেক্ষাকৃত সরু, তাকে সিংহমুখ ক্ষেত্র বলে। এমন জমি ব্যবসার ক্ষেত্রে শুভ হলেও বাসের অনুপযোগী।

৮. গোমুখ ক্ষেত্র— সিংহমুখের বিপরীত অর্থাৎ সামনের দিক সরু এবং পিছন দিক চওড়া, এমন জমিতে বসবাস, ব্যবসা— উভয়ই শুভ।

৯. ঢোলকাকৃতি ক্ষেত্র— এমন প্লটে বাড়ি হলে স্ত্রী ও পরিবারের অন্য মহিলা সদস্যদের জীবনহানির সম্ভাবনা থাকে।

১০. ডিম্বাকৃতি ক্ষেত্র— এই আকারের জমিতে ধর্মপ্রতিষ্ঠান, মন্দির ইত্যাদি নির্মাণ করলে তা শুভ হয়। কিন্তু গৃহী ব্যক্তিদের বসবাসের পক্ষে এটি অত্যন্ত ক্ষতিকর।

১১. চক্রাকার ক্ষেত্র— এমন প্লট মনুমেন্ট, মন্দির ইত্যাদির পক্ষে উপযুক্ত। কিন্তু বসবাসের পক্ষে একেবারেই নয়। তবে বাস্তুবিদের পরামর্শ অনুযায়ী বাসভবন নির্মাণ করলে তাকে বসবাসের উপযুক্ত করে তোলা যায়।

১২. অসম আকৃতির ক্ষেত্র— বসবাস, ব্যবসা— সব কিছুর জন্যই এমন জমি অশুভ।

১৩. অষ্টকোণাকৃতি ক্ষেত্র— এমন প্লটও অত্যন্ত অশুভ। সুখ, সমৃদ্ধি এবং আর্থিক উন্নতির পক্ষে সুবিধের নয়।

১৪. ত্রিকোণ ক্ষেত্র— ‘মঙ্গলের প্লট’ নামে পরিচিত। পুরাকালে তন্ত্রশাস্ত্রে এই ক্ষেত্র চিল মঙ্গলের চিহ্ন। এই প্লটে বাস করলে মঙ্গলের কুফল পাওয়া যায়। দুর্ঘটনা, মামলা-মোকদ্দমা, শল্য চিকিৎসা ইত্যাদি লেগে তাকে। তবে সংস্কার করিয়ে নিলে এই ক্ষেত্রকে বাসযোগ্য কতে তোলা যায়।

(লেখক বৈদিক জ্যোতিষ, নিউমেরোলজি, বাস্তু ও ফেং শ্যুই বিশেষজ্ঞ)

Share it on
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -