SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

১০০ কোটি! কালো টাকা সাদা করার হিড়িক কলকাতা শহরে

দেবাশিস ঘড়াই | মার্চ ২১, ২০১৭
Share it on
জমা পড়া নগদের পরিমাণ ১০০ কোটি টাকারও বেশি! শেষ লগ্নে এসে শহরে কালো টাকা সাদা করার হিড়িক তুঙ্গে উঠেছে বলেই আয়কর দফতর সূত্রের খবর।

জমা পড়া নগদের পরিমাণ ১০০ কোটি টাকারও বেশি! শেষ লগ্নে এসে শহরে কালো টাকা সাদা করার হিড়িক তুঙ্গে উঠেছে বলেই আয়কর দফতর সূত্রের খবর।
কেন্দ্রীয় সরকার গত ১৭ ডিসেম্বর থেকে ‘প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনা’ (পিএমজিকেওয়াই) প্রকল্প শুরু করেছিল। ওই প্রকল্পের মাধ্যমে কালো টাকা কার্যত সাদা করার সুযোগ রয়েছে নাগরিকদের। তার মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৩১ মার্চ। 
আয়কর দফতর সূত্রের খবর, এখনও পর্যন্ত ওই প্রকল্পে শহর থেকে ১০০ কোটিরও বেশি টাকা জমা পড়েছে। ১২৫ জন নাগরিক ওই প্রকল্পের মাধ্যমে নিজেদের হিসাব বহির্ভূত টাকা সাদা করেছেন। আরও আবেদন জমা পড়ছে ওই দফতরে। 
আয়কর দফতরের এক শীর্ষ কর্তার কথায়, ‘‘শহর থেকে পিএমজিকেওয়াই প্রকল্পে ভাল সাড়া মিলেছে। আরও অনেকে এসে এখন সারেন্ডার করছেন।’’
প্রসঙ্গত, ওই প্রকল্পে কর, জরিমানা এবং সারচার্জ মিলিয়ে হিসাব বহির্ভূত আয়ের ৪৯.৯ শতাংশ জমা দিতে হবে। আরও ২৫ শতাংশ টাকা কোনও সুদ ছাড়াই চার বছরের জন্য জমা রাখতে হবে ‘প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ তহবিলে’। তাতে বাকি ২৫ শতাংশ ‘সাদা’ হয়ে যাবে। যদিও এই প্রকল্প নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। বিরোধীদের বক্তব্য, ওই প্রকল্পের মাধ্যমে কালো টাকার মালিকদের সুযোগ করে দিচ্ছে কেন্দ্র।
যদিও আয়কর দফতরের আধিকারিকদের একাংশ জানাচ্ছেন, ব্যাপারটা ঠিক সুযোগ দেওয়ার নয়। কারণ, শহরে কালো টাকার মালিক কারা, সে সম্পর্কে তালিকা তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। তাঁদের যাবতীয় আর্থিক লেনদেনের উপরে নজর রাখা হচ্ছে। নির্দিষ্ট তথ্যভাণ্ডারের মাধ্যমে দফতর ওই নাগরিকদের আয়, আয়ের উৎস সম্পর্কে সম্পূর্ণ ওয়াকিবহাল। সংশ্লিষ্ট নাগরিকদের আদতে কত কর দেওয়া উচিত, তাঁরা বাস্তবে কত কর দেন বা আদৌ দেন কি না, তা-ও দফতরের জানা। অনেকের বাড়িতে অভিযানও চালানো হচ্ছে। 
আয়কর দফতরের আরেক কর্তার কথায়, ‘‘প্রকল্পের সুযোগ না নিয়ে ধরা পড়লে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে কালো টাকার প্রায় ৯০ শতাংশ জরিমানা দিতে হবে। নেওয়া হবে আইনানুগ ব্যবস্থাও। তবে সময়সীমা শেষের আগে একটা সুযোগ আমরা দিতে চাইছি।’’

Black Money Demonetization Narendra Modi
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -