SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

গরিব বলেই কি কঠিন ধারা প্রয়োগ! জামিনে মুক্ত হয়েই প্রশ্ন তুললেন অর্ণব

নিজস্ব প্রতিবেদন | মে ২০, ২০১৭
Share it on
দীর্ঘ টানাপড়েনের শেষে দু’মাস পর শুক্রবার রাতে হুগলির চুঁচুড়া জেল থেকে ছাড়া পেলেন সংগীতশিল্পী কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্যের গাড়ির চালক অর্ণব রাও।

নীল-সাদা জামা, জিন্‌সের ট্রাউজার্স পরা ছেলেকে জেল থেকে বেরোতে দেখে কেঁদে ফেললেন মা। আনন্দে দু’হাত মুঠো করে শূন্যে ছুড়ে দিলেন। আর মা’কে জড়িয়ে ধরে ছেলের প্রশ্ন, ‘‘বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের ঘটনাটা না ঘটলে কি আদৌ মুক্তি পেতাম?’’ 

দীর্ঘ টানাপড়েনের শেষে দু’মাস পর শুক্রবার রাতে হুগলির চুঁচুড়া জেল থেকে ছাড়া পেলেন সংগীতশিল্পী কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্যের গাড়ির চালক অর্ণব রাও। ঘটনা হল, গত ১৬ মে, মঙ্গলবার অর্ণবের জামিন মঞ্জুর করেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। কিন্তু ব্যক্তিগত বন্ডের ২০ হাজার টাকা জোগাড় করতে না পারায় মুক্তি পাচ্ছিলেন না তিনি। শেষপর্যন্ত এদিন টাকা ধার করে পোস্ট অফিসে জমা করেন অর্ণবের মা করবী ঘোষ। 

কেমন ছিল জেলের জীবন? অর্ণব বলেন, ‘‘কয়েকজনের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয়েছিল। আসামিদের সঙ্গে থাকতে ভাল লাগত না। তবে কেউ খারাপ ব্যবহার করেননি।’’ অর্ণব জানান, জেলে টিভি দেখতেন তিনি। একদিন তাতেই দেখেন লেক মলের সামনে দুর্ঘটনায় পড়েছে অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ি। মৃত্যু হয়েছে মডেল সনিকা সিংহ চৌহানের। তার পরের ঘটনাপ্রবাহ অবাক করেছে অর্ণবকে। তাঁর কথায়, ‘‘দেখলাম একই অপরাধে দু’জনের বিরুদ্ধে দু’রকম ধারা প্রয়োগ করা হল। আমাকে পুরে দেওয়া হল জেলে। আর অভিনেতার বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য ধারা প্রয়োগ হওয়ায় তিনি দিব্যি শ্যুটিং করছেন!’’ অর্ণব বলেন, ‘‘শুনেছি অভিনেতা মদ খেয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন। আমি তো মদ খাইনি। গরিব বলেই কি আমার বিরুদ্ধে কঠোরতর ধারা প্রয়োগ করা হল!’’ 

গত ৭ মার্চ দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়েতে দুর্ঘটনায় কালিকাপ্রসাদের মৃত্যু হয়। জামিন অযোগ্য ধারা (৩০৪) প্রয়োগ করে গত ১৩ মার্চ জেলে পাঠানো হয় অর্ণবকে। দুর্ঘটনার অভিজ্ঞতা বলতে গিয়ে অর্ণব বলেন, ‘‘কেউ কেউ বলছেন আমার চোখ লেগে গিয়েছিল! মিথ্যা কথা। একটা লরি আমাদের গাড়িটাকে চেপে দিয়েছিল। তারপর আর কিছু মনে নেই।’’ 

করবী বলেন, ‘‘বিক্রম আমাদের শত্রু নন। তবে ধনীরা গাড়ি চালান পার্টিতে যাওয়ার জন্য। আমার ছেলে পেটের দায়ে গাড়ি চালাচ্ছিল। মহামান্য আদালত সেটা বুঝেছেন।’’ অর্ণবের আইনজীবী দিব্যেন্দু ভট্টাচার্যের কথায়, ‘‘পুলিশ কেন এভাবে মামলা সাজাল সেটাই আশ্চর্যের!’’ 

Arnab Rao Vikram Chatterjee
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -