SEND FEEDBACK

English
Bengali
English
Bengali

নিখোঁজ যুবকের রক্তের চিহ্ণ অফিসে, খুনের দায়ে অভিযুক্ত প্রোমোটার

নিজস্ব সংবাদদাতা | মার্চ ২০, ২০১৭
Share it on
রবিবার সকালে ওই প্রোমোটারের অফিস ঘরে জমাট বাঁধা রক্ত দেখেন আমিনুরের পরিবারের সদস্যেরা। এরপরই দায়ের হয় খুনের অভিযোগ।

রক্ত দেখে বা়ড়ল সন্দেহ। প্রোমোটারের বিরুদ্ধে খুন করে দেহ লোপাটের অভিযোগ দায়ের করল নিখোঁজ যুবকের পরিবার।
কয়েকমাস ধরে প্রোমোটার মঞ্জুর আলি মোল্লার সঙ্গে টাকা নিয়ে বিবাদ চলছিল মেটিয়াবুরুজ এলাকার বাসিন্দা আমিনুর আলি পুরকাইতের। শনিবার সকালে নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। রবিবার সকালে ওই প্রোমোটারের অফিস ঘরে জমাট বাঁধা রক্ত দেখেন আমিনুরের পরিবারের সদস্যেরা। এরপরই দায়ের হয় খুনের অভিযোগ। এদিন দুপুরে আমিনুরের সন্ধানে লালপুল এলাকায় আনা হয় পুলিশ কুকুর। একটি পুকুরে নামানো হয়েছিল ডুবুরিও। কিন্তু রাত পর্যন্ত সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ যুবকের। অভিযুক্ত প্রোমোটারও পলাতক।
স্থানীয় সূত্রের খবর, গত ছ’মাস ধরে মঞ্জুরের হয়ে কাজ করতেন বছর তিরিশের আমিনুর। পরিবারের অভিযোগ, দু’তিন মাস ধরে আমিনুরের প্রাপ্য টাকা মেটাচ্ছিলেন না মঞ্জুর। টাকা চাইতে গেলে আমিনুর ওরফে লাল্টুকে প্রাণনাশের হুমকিও দেন ওই প্রোমোটার। আমিনুরের পরিবারের অভিযোগ, শনিবার বেলা ১২টা নাগাদ মঞ্জুরের অফিসে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকেই সন্ধান নেই তাঁর। এদিন সকালে কৌতূহলবশত ওই অফিসে যান আমিনুরের দাদা মহম্মদ আলি পুরকাইত। দরজা বাইরে থেকে তালা বন্ধ ছিল। পরিচিত এক মিস্ত্রির সাহায্যে তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে মেঝেতে রক্তের দাগ দেখতে পান তিনি। তাঁর কথায়, ‘‘রক্ত যাতে গড়িয়ে না পড়ে তাই তার উপর প্লাস্টার অফ প্যারিস ছড়ানো ছিল। আমাদের সন্দেহ, ভাইকে ডেকে খুন করে দেহ লোপাট করেছে মঞ্জুর।’’
এদিন সকালেও বাড়ি না ফেরায় মঞ্জুরের বাড়িতে যান আমিনুরের পরিবারের সদস্যেরা। কিন্তু সেসময় বাড়ি ছিলেন না ওই প্রোমোটার। তাঁর এক কর্মচারী ইস্তেফাক আলম জানান, শনিবার দুপুরে আমিনুরের সঙ্গে মঞ্জুরকে অফিসে ঢুকতে দেখেছিলেন তিনি।  ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই পুলিশ সেখানে পরিদর্শনে আসবে—এই বলে শুধু আমিনুরকে রেখে দিয়ে বাকি সকলকে সেখান থেকে চলে যেতে বলেন মঞ্জুর। পুলিশ সূত্রের খবর, অফিসের সিঁড়ির সিসিটিভি থেকে পাওয়া ফুটেজে আমিনুর এবং মঞ্জুরকে উপরের ঘরে উঠতে দেখা গিয়েছে। কিন্তু তার পরের কোনও ফুটেজ পাওয়া যায়নি। এদিন তল্লাশির সময় পুলিশ কুকুর একটি পুকুরের সামনে গিয়ে দাঁড়িয়ে পড়ে। এরপরই নামানো হয় ডুবুরি।

Manjur Ali Mollah Aminur Ali Purkait
Share it on
Community guidelines
আরও যা আছে
আরও খবর
ওয়েবসাইটে আরও যা আছে
আরও খবর
আমাদের অন্যান্য প্রকাশনাগুলি -