Sitong
হাত বাড়ালেই কমলালেবু, সঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘা ফ্রি, ঘুরে আসুন উত্তরবঙ্গের এই জাগয়া থেকে
দার্জিলিং নয়, তার কাছেই রয়েছে এক ছোট্ট জনপদ যেখানে বছরের যে কোনও সময়েই ঘুরতে যাওয়া যেতে পারে। বর্ষাকাল বাদে। আর শীতের সময় গেলে দেখা পেতে পারেন শীতের ফলও।
হাত বাড়ালেই কমলালেবু, সঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘা ফ্রি, ঘুরে আসুন উত্তরবঙ্গের এই জাগয়া থেকে
দার্জিলিং নয়, তার কাছেই রয়েছে এক ছোট্ট জনপদ যেখানে বছরের যে কোনও সময়েই ঘুরতে যাওয়া যেতে পারে। বর্ষাকাল বাদে। আর শীতের সময় গেলে দেখা পেতে পারেন শীতের ফলও।
বারো বছর অন্তর ফোটে এই ফুল, প্রকৃতির আশ্চর্য শোভার দেখা মেলে এদেশেই
এই দেশের মাটিতেই ফোটে এমন এক ফুল যা দেখা যায় ১২ বছর অন্তর। বন্যা কবলিত অঞ্চলের ঙয় কাটিয়ে তাই দেখতেই ছুটে যাওয়া এক প্রকৃতিপ্রেমীর কলমে থাকল সেই বৃত্তান্ত।
জল, পাহাড়, জঙ্গল! কলকাতার খুব কাছেই অল্প খরচে ঘুরে আসুন এই শীতে
রাত্রিযাপনের জন্য রয়েছে টেন্টের ব্যবস্থা। শীতের রাতে হিমেল হওয়াতে টেন্টের মধ্যে এক রাত্রি কাটিয়ে এক অন্য অভিজ্ঞতার সাক্ষী হতেই পারেন পর্যটকরা।
শীতকালে মাত্র তিন হাজারে সুন্দরবন, বাঘের দর্শনও মিলতে পারে
সুন্দরবন ভ্রমণের দু’টি দিক রয়েছে। একটি সুন্দরবন ব্যঘ্র প্রকল্প এলাকা ও অন্যটি ২৪ পরগনা বনবিভাগ এলাকা।
৫০০ বছরেও ফিকে হয় না রং, এমন জাদু রয়েছে বাংলার গ্রামেই
অন্যান্য মেলার মতো স্টল করে নয়, তিন দিনের জন্য নিজেদের বাড়ির বারান্দা বা দালানকেই তাঁরা সাজিয়ে তোলেন পটচিত্রের সামগ্রী দিয়ে।
কলকাতা থেকে বাংলাদেশ, নদীপথেই বিলাসিতার ব্যবস্থা নতুন বছরে
২০১৯ সালের মার্চ থেকেই শুরু হবে এই ‘রিভার ক্রুজ’, এমনটাই জানা গিয়েছে ‘ইনল্যান্ড ওয়াটারওয়েজ অথরিটি অফ ইন্ডিয়া’ (আইডবলিউএআই)।
নিয়ম মানলেই ঘুরে দেখার সুযোগ ভারতের সর্বোচ্চ আদালত, জানুন সবিস্তারে
চলতি বছরে নির্মাণের ৬০ বছর পূর্ণ করল ভারতের সর্বোচ্চ আদালত। উপর থেকে দেখলে, এই স্থাপত্যের আকার একটি ন্যায়দণ্ডের মতো।
কুয়াশাচ্ছন্ন এক গুরুদ্বার, যেখানে পূজিত হন রামায়ণের লক্ষ্মণ, জেনে নিন কাহিনি
ভারতের সর্বোচ্চ গুরুদ্বার, যার পাশেই রয়েছে এক হিন্দু মন্দির। সঙ্গে রয়েছে হিমালয়ের অমোঘ টান।
হীর-রাঞ্ঝার প্রেমকথা কি শুধুই কাহিনি, কী বলছে ইতিহাস
পঞ্জাবের চেনাব নদীর পাড়েই রয়েছে হীর-রাঞ্ঝার সমাধি, এমনই কথা বলছে স্থানীয়রা।
ভারতের এক মন্দিরের আকাশছোঁয়া সম্পত্তি রক্ষা করেন স্বয়ং নাগরাজ, জানুন সেই কাহিনি
সোনার গয়না, হীরের হার, মণি-মুক্তোর এক বিশাল সম্ভার রয়েছে ভারতের এই মন্দিরের এক গুপ্ত ঘরে। যেখানে মানুষ প্রবেশ করতে পারে না। কারণ প্রহরায় থাকেন স্বয়ং নাগরাজ।
কলকাতা থেকেই যাত্রা মহাকাশে, কাছ থেকে দেখার সুযোগ তারা-নক্ষত্র
লাল গ্রহের আগ্নেয়গিরি, শনির বলয়, বৃহস্পতির চাঁদ— কলকাতাবাসী সব কিছুই দেখতে পাবে একেবারে কাছ থেকে। 
১০ হাজারেরও বেশি বুদ্ধের বাস এই মনাস্টারিতে, অথচ নেই কোনও বৌদ্ধ সন্ন্যাসী
বৌদ্ধ গুম্ফা হলেও সেখানে থাকেন না কোনও বৌদ্ধ সাধক বা ভিক্ষু। তবুও সেখানে রয়েছে বিশাল সংখ্যার বুদ্ধ মূর্তি।
জলের তলায় রিসর্ট, ক্যাফেটেরিয়া, সাধ্য থাকলে সহজেই সাধ পূরণ
রিসর্টের রুমে নরম বিছানায় শরীর এলিয়ে শুধু স্বস্তির ঘুমই নয়, বাড়তি পাওনা মাছেদের সঙ্গে বন্ধুত্ব। কারণ লাক্সারি রুমের ছাদে ভেসে বেড়াচ্ছে নানা রকমের সামুদ্রিক মাছ। নীল জলের দিকে তাকিয়ে সারাবছরের ক্লান্তি ভুলতে পারেন এক নিমেষে।